বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

ওমানের আল-আমেরাত স্টেডিয়ামে ক্রিকেটের কিংবদন্তিরা তিন দলে ভাগ হয়ে এই টুর্নামেন্টে খেলতে যাচ্ছেন। ভারতের বিখ্যাত খেলোয়াড়েরা খেলবেন এক দলে, বাকি এশিয়ার কিংবদন্তিদের নিয়ে গঠিত হবে আরেকটি দল। বাকি বিশ্বের বড় বড় ক্রিকেটার খেলবেন আরেক দলের হয়ে।


এর মধ্যেই এশিয়ার দলে কে কে খেলবেন, সেটা নিশ্চিত হয়ে গেছে। আক্ষরিক অর্থেই তারার হাট বসেছে দলে। ‘এশিয়া লায়নস’ বলে পরিচিত হতে যাওয়া দলটাতে আছেন শোয়েব আখতার থেকে শুরু করে শহীদ আফ্রিদি, সনৎ জয়াসুরিয়া, মুত্তিয়া মুরালিধরন সবাই।

default-image

শুধু তা-ই নয়, দলে আরও আছেন লঙ্কান ইতিহাসের শ্রেষ্ঠতম পেসার চামিন্দা ভাস, বিশ্বকাপজয়ী উইকেটকিপার রমেশ কালুভিথারানা, সাবেক ওপেনার উপুল থারাঙ্গা। পাকিস্তান থেকে আরও আছেন বিখ্যাত ব্যাটসম্যান ইউনিস খান, মিসবাহ–উল–হক ও মোহাম্মদ ইউসুফ, অলরাউন্ডার শোয়েব মালিক, মোহাম্মদ হাফিজ, পেসার উমর গুল ও আজহার মাহমুদ। ওদিকে আফগানিস্তানের একমাত্র প্রতিনিধি হিসেবে দলে আছেন সাবেক অধিনায়ক আসগর আফগান। বাংলাদেশের সাবেক বা বর্তমান কোনো ক্রিকেটার নেই দলে।


কিছুদিন আগে ভারতের সদ্য সাবেক হওয়া কোচ রবি শাস্ত্রী এই টুর্নামেন্টের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন কমিশনার হিসেবে। আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে রোহিত-কোহলিদের সাবেক কোচ জানিয়েছেন, ‘উঁচু মানের ক্রিকেটের দেখা মিলবে এই টুর্নামেন্টে। পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, আফগানিস্তান থেকে আসা এশিয়ার সিংহরা এক দল হয়ে খেলবেন, নিশ্চিতভাবেই বাকি দুই দলকে এই দলটা যথেষ্ট ভোগাবে। তাঁরা প্রত্যেকেই চ্যাম্পিয়ন খেলোয়াড়। আফ্রিদি, চামিন্দা, মুরালি আর শোয়েব মালিকের মতো খেলোয়াড়েরা এক দলে থাকা মানেই তো ফাটাফাটি ব্যাপার!’

default-image

টুর্নামেন্টের প্রধান নির্বাহী রমন রাহেজাও বেশ রোমাঞ্চিত এমন কিছু আয়োজন করতে পেরে, ‘এশিয়ার দলটাকে আমরা এশিয়া লায়নস নাম দিয়েছি। আমাদের কাছে মনে হয়েছে, এটাই তাঁদের জন্য উপযুক্ত নাম, কেননা দলের প্রত্যেক খেলোয়াড়ই সিংহ-হৃদয়ের। শোয়েব আখতারকে বল করতে কিংবা জয়াসুরিয়াকে ব্যাট করতে দেখার জন্য অনেক ভক্তই অপেক্ষা করে আছেন। ক্রিকেট মাঠে এই সিংহরা আবারও গর্জন করে উঠবে জোরেশোরে, যে জায়গায় তাঁদের সিংহ হয়ে ওঠা!’


ভারতের দল আর বাকি বিশ্ব নিয়ে গঠিত দলে আর কে কে খেলবেন, সে ব্যাপারে এখনো কিছু জানা যায়নি।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন