default-image

ক্রিকেট ঐতিহ্য কিংবা শক্তি-সামর্থ্য—সবকিছুতেই বাংলাদেশের চেয়ে যোজন-যোজন মাইল এগিয়ে ভারত ও পাকিস্তান। কিন্তু কলম্বোর পি সারায় আজকের জয় শক্তিধর এই দুই দেশের চেয়ে একটা জায়গায় এগিয়ে রাখল বাংলাদেশকে!
২০০ রানের নিচে লক্ষ্য দিয়ে এর আগে দেশের মাটিতে দুই বার জিতেছে শ্রীলঙ্কানরা। একবার পাকিস্তানের বিপক্ষে আরেকবার ভারতের বিপক্ষে। কিন্তু ১৯১ রানের লক্ষ্য দিয়ে এবার জিততে পারল না শ্রীলঙ্কা। শততম টেস্টে তামিম-সাকিব-মুশফিকদের জয়ের স্পৃহা জিততে দেয়নি স্বাগতিকদের।
দু শ রানের নিচে লক্ষ্য দিয়ে আগে শ্রীলঙ্কার জেতা দুটি টেস্টেই স্বাগতিকদের জয়ের অন্যতম কুশীলব ছিলেন রঙ্গনা হেরাথ। ২০০৯ সালের জুলাইয়ে গলে চতুর্থ ইনিংসে পাকিস্তানকে ১৬৮ রানের লক্ষ্য দিয়েছিল শ্রীলঙ্কা। ২ উইকেটে ৭১ রান তুলেও পাকিস্তান ম্যাচটি হেরে ৫০ রানে গিয়েছিল ১১৭ রানে অলআউট হয়ে। শেষ ৮ উইকেট হারিয়ে সফরকারীরা হারিয়েছিল ৪৬ রানে। যার চারটি উইকেটই নিয়ে ছিলেন হেরাথ।
এরপর ২০১৫ সালে ১৭৬ রানের লক্ষ্য দিয়ে ভারতের বিপক্ষেও জিতেছিল শ্রীলঙ্কা। গল টেস্টে বিরাট কোহলি, অজিঙ্কা রাহানে, লোকেশ রাহুল, শিখর ধাওয়ান, রোহিত শর্মাদের নিয়ে গড়া ভারতের শক্তিশালী ব্যাটিং লাইনআপ হেরাথের ঘূর্ণি জাদুতে মুখ থুবড়ে পড়েছিল। ৪৮ রানে হেরাথ ৭ উইকেট নিলে ভারত অলআউট ১১২ রানে। শ্রীলঙ্কার জয় ৬৩ রানে।
সেই হেরাথই আজ বাংলাদেশের চতুর্থ ইনিংসের শুরুতে ভীতি ছড়িয়ে ছিলেন। অষ্টম ওভারেই পর পর দুই বলে সৌম্য সরকার ও ইমরুল কায়েসকে ফিরিয়ে দিয়েছিলেন। কিন্তু হেরাথ-ভীতি কাটিয়েই জিতেছে বাংলাদেশ।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন