বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

২১১ রান তাড়ায় শেষ ৩৪ বলে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের প্রয়োজন ছিল ২০ রান। হাতে ছিল ১ উইকেট। তবে দশম উইকেট জুটিতে মুশফিক হাসানকে নিয়ে তাহজিবুল ইসলাম ততক্ষণে ২৬ রান তুলে ফেলায় বাংলাদেশের জয়ের আশা বাড়ে। কিন্তু আফগানিস্তান অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বাঁহাতি স্পিনার নাঙ্গেয়ালিয়া ৪৫তম ওভারের দ্বিতীয় বলটা করতে যাওয়ার আগেই দ্রুতগতিতে ভেঙে দেন নন-স্ট্রাইক প্রান্তের স্টাম্প। মুশফিক তখন ক্রিজের বাইরেই ছিলেন। আম্পায়ারও দিয়েছেন আউট, এরপর বেশ বুনো উল্লাসেই মেতেছেন নাঙ্গেলিয়া। যোগ দিয়েছে আফগানিস্তান দল।

default-image

এর আগে টানা তিন ম্যাচ জিতে সিরিজ জয় নিশ্চিত করে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। চতুর্থ যুব ওয়ানডেতে এসে অবশেষে হারের তেতো স্বাদ পেল মেহরব হোসেনের দল। ওই মানকাডের পর ম্যাচটা ১৯ রানে হেরেছেন বাংলাদেশের যুবারা।

টস জিতে ব্যাটিং নেওয়া আফগানিস্তান অনূর্ধ্ব-১৯ দল ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ২১০ রান তুলেছিলেন বিলাল আহমেদের ৬০ ও সুলিমান আরবজাইয়ের ৪৩ রানের ইনিংসে ভর করে। জবাবে ৪৪.২ ওভারে ১৯১ রানেই থেমেছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ইনিংস। আটে নেমে তাহজিবুল ইসলাম করেছেন ৭৫ বলে ৫০ রান, তবে তাঁর ফিফটি বৃথাই গেল!

আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ৪৭ রানে ২ উইকেট হারিয়েছিল আফগানরা। ওপেনিংয়ে নামা আরবজাইয়ের সঙ্গে প্রথমে বিলাল গড়েন ৩৮ রানের জুটি। এরপর মাহমুদউল্লাহ নাজিবুল্লাহর সঙ্গে বিলালের জুটিতে ওঠে আরও ৫৫ রান। সাতে নেমে নাঙ্গেলিয়া খেলেছেন ৩৬ বলে ২৭ রানের ইনিংস। শেষ দিকে দ্রুত কিছু উইকেট হারালেও লড়াই করার মতো স্কোর পেয়েছে আফগানরা।

default-image

বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের মহিউদ্দিন তারেক নিয়েছেন ২টি করে উইকেট। একটি করে উইকেট নিয়েছেন মুশফিক, মেহরব, আইচ মোল্লা, নাইমুর রহমান ও আব্দুল্লাহ আল মামুন।

রান তাড়ায় ওপেনিং জুটিতেই ৫০ রান এনে দেন মাহফিজুল ইসলাম ও ইফতিখার হোসেন। তবে এরপরই খেই হারায় বাংলাদেশ দল। ৭৮ রানের ব্যবধানে ৭ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়েন তাঁরা। এরপরই লড়াই শুরু করেন তাহজিবুল। শামসুল ইসলাম, তারেকের পর তাঁকে সঙ্গ দেওয়ার জন্য ছিলেন মুশফিক। তবে এক ‘মানকাড’ ভেস্তে দিয়েছে সব।

সম্প্রতি মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আফ্রিকান অঞ্চলের বাছাইপর্বে উগান্ডার চার ব্যাটারকে ‘মানকাড’ করে আলোচনায় এসেছিল ক্যামেরুনের ১৬ বছর বয়সী পেসার মায়েভা দুমা।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন