বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

ডারবানের উইকেটে কিছুটা ঘাস আছে। এ মাঠের ইতিহাসও বোলারদের পক্ষেই কথা বলে। সর্বশেষ নয় টেস্টে এ মাঠে আগে ব্যাটিং করা দলের গড় সংগ্রহ ২৯৭। এ সময় মাত্র একটি দল টেস্টের প্রথম ইনিংসে ব্যাটিং করে ৩৫০ করতে পেরেছে। টসের আগে এ ব্যাপারটি অধিনায়ক মুমিনুল হকের মাথায় ছিল কি! আপাতত অধিনায়কের ফিল্ডিং নেওয়ার সিদ্ধান্তের পক্ষে তাসকিন–খালেদ–ইবাদতরা বলার মতো কিছু করতে পারেননি।

টসের পর দুই দলের ক্রিকেটারদের মাঠে নেমে জাতীয় সংগীত গাওয়ার পরেও খেলা শুরু হয়নি। সাইটস্ক্রিন সমস্যার কারণে ৩৩ মিনিট পর দেরিতে খেলা শুরু হয়। মাঠে নেমেও ড্রেসিংরুমে ফিরে যেতে হয় মুমিনুল হকদের। তবে খেলা শুরু হওয়ার পর আধিপত্যের রাশ পুরোপুরি চলে গেছে দক্ষিণ আফ্রিকান ব্যাটসম্যানদের হাতে। বিরতির ঠিক আগের ওভারে ব্যক্তিগত ৩২ রানে মেহেদী হাসান মিরাজের অফ ব্রেকে উইকেটের পেছনে লিটন দাসকে ক্যাচ দিয়েছিলেন এরউয়ি। কিন্তু লিটন সেটি নিতে পারেননি। এরউয়ির ক্যাচটা নিতে পারলে মধ্যাহ্ন বিরতিটা স্বস্তির হতে পারত বাংলাদেশের।

default-image

তাসকিনের করা টেস্টের প্রথম বলটিই ছিল ফুল টস, যাতে চার মেরেছেন এলগার। প্রথম দুই ওভারে তাসকিন দিয়েছেন ১২ রান। পরে কিছুটা ফিরে এলেও দক্ষিণ আফ্রিকার জন্য বড় হুমকি হতে পারেননি। ইবাদত অবশ্য বেশ লাইন ও লেংথ ধরে বোলিং করেছিলেন শুরু থেকেই। কিন্তু তাঁকে ভালোই খেলেছেন এলগার আর এরউয়ি। তিনিই এখনো পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি খরুচে।

এলগার পঞ্চাশ পেরিয়েছেন। ৭৬ বলে ৬০ রান নিয়ে ব্যাটিং করছেন তিনি। এরউয়িও ৭৬ বল খেলেছেন। তাঁর ব্যাট থেকে এসেছে ৩২। ইবাদত ৭ ওভারে দিয়েছেন ৩৯ রান, তাসকিন ৯ ওভারে ৩১। খালেদ ৫ ওভারে ১৫। মিরাজের ৪ ওভার থেকে এসেছে ৯ রান। একটা উইকেটও যে থাকতে পারত, এটা শুধু দীর্ঘশ্বাসই ফেলছে বাংলাদেশ দলের।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন