মিসবাহ-উল-হক এখন একটা লৌহবর্ম চাইতে পারেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে লজ্জাজনক পরাজয়ের পর ঝাঁকে ঝাঁকে সমালোচনার তির ধেয়ে যাচ্ছে পাকিস্তান অধিনায়কের দিকে!
সবচেয়ে ধারালো তিরটা ছুড়েছেন সম্ভবত শোয়েব আখতারই। জিয়ো নিউজকে ‘পিন্ডি এক্সপ্রেস’ বলেছেন, ‘আমি মিসবাহর চেয়ে কাপুরুষ ও স্বার্থপর অধিনায়ক আর দেখিনি। খেলোয়াড়দের অনুপ্রাণিত করতে তাকে এখন ব্যাটিং অর্ডারের ওপরে আসা উচিত। কিন্তু তার সে রকম কোনো ইচ্ছাই নেই বলে মনে হচ্ছে। নিজের রান নিয়েই সে খুশি।’ সাবেক সতীর্থ ও পাকিস্তানের বর্তমান কোচ ওয়াকার ইউনিসেরও সমালোচনা করেছেন শোয়েব, ‘ওয়াকার ইউনিস কী চায় সেটা আমি বুঝতে পারছি না। দলে তার কোনো পরিকল্পনা ও দিকনির্দেশনাই দেখিনি।’ ভারতের সঙ্গে প্রথম ম্যাচে দল হারলেও মিসবাহ এক প্রান্ত আঁকড়ে একাই লড়েছেন। কিন্তু ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ব্যর্থ ৪০ বছর বয়সী মিসবাহও, আউট হয়েছেন ৭ রান করে।
সাবেক ক্রিকেটার ও ধারাভাষ্যকার রমিজ রাজার আঙুল আবার আরেক সিনিয়র ক্রিকেটার ইউনিস খানের দিকে, ‘আমি ইউনিসের কাছে করজোড়ে বলছি, পাকিস্তানের জন্য তুমি যা করেছ সে জন্য অনেক ধন্যবাদ। দয়া করে এখন ওয়ানডে দল থেকে সরে দাঁড়াও। আমার মনে হয় ইউনিসের নিজেরই টিম ম্যানেজমেন্টকে এটা বলা উচিত।’ রমিজ রাজা অবশ্য তার পরও আশাবাদী, ‘আমাদের ফিল্ডিংটা কৌতুকের জন্ম দিছে, কিন্তু জয়ের ধারায় ফিরতে আমাদের একটা ম্যাচই দরকার।’
জিম্বাবুয়ের সঙ্গে পরের ম্যাচটা না জিতলে দেশের বিমানে উঠে পড়তে হতে পারে মিসবাহদের। সাবেক পেসার ওয়াসিম আকরাম সেটাই মনে করিয়ে দিচ্ছেন, ‘আমি আশাবাদী এই ম্যাচটা ওরা জিতবে। মাঠের বা দেশের কোটি লোকের উৎসাহ দেওয়ার কথা তাদের কথা মনে রাখা উচিত।’ পাকিস্তানের চার বোলার নিয়ে খেলার নীতির সমালোচনা করেছেন আকরাম, ‘আমি বুঝি না আমাদের শক্তিশালী দিকটাকেই কেন দুর্বল করে ফেলা হচ্ছে। অতিরিক্ত একজন ব্যাটসম্যান নিয়েও আমরা রান তাড়া করতে পারছি না।’ রয়টার্স, এএফপি।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন