default-image

গলায় গলায় ভাব হয়তো ছিল না, তবে বন্ধু ছিলেন দুজন। তাঁদের স্বপ্নও ছিল একই রকম। সেই স্বপ্নের পথে একজন লিফটে চড়ে উঠে গেছেন তরতর করে। অন্যজন পারেননি। তাই বলে হালও ছাড়েননি। লিফটে জায়গা হয়নি বলে বেছে নিয়েছেন সিঁড়ি। এই পথ ধরে তিনি একসময় পৌঁছেছেন কাঙ্ক্ষিত সেই মঞ্চে। মঞ্চের নাম বিশ্বকাপ। অনেক বছর পর আজ এই মঞ্চে দুই বন্ধু মুখোমুখি। একজনের নাম অজিঙ্কা রাহানে, অন্যজন স্বপ্নিল পাতিল। রাহানে খেলবেন ভারতের হয়ে, তবে দেশের নামটা বদলে গেছে পাতিলের। আজ তাঁর গায়ে সংযুক্ত আরব আমিরাতের জার্সি।
মুম্বাইয়ের বয়সভিত্তিক দলের এই দুই ক্রিকেটার একসঙ্গে খেলেছেন অনূর্ধ্ব-১৪, ১৬, ১৯ ও ২২ দলে। ভালো করে রাহানে একসময় ডাক পেয়ে যান জাতীয় দলে। পাতিল পারেননি। জীবিকার তাড়নায় একসময় দেশ ছেড়ে পাড়ি জমান আমিরাতে। ক্রিকেট অবশ্য ছাড়েননি। আমিরাতে ঘরোয়া ক্রিকেট খেলেছেন, তারপর আইসিসির অভিবাসী ক্রিকেটার আইন মেনে একসময় জায়গা পেয়েছেন সে দেশের জাতীয় দলেও। সেখান থেকে বিশ্বকাপ। ক্রিকেটের মহামঞ্চে বন্ধুর মুখোমুখি হওয়ার আগে ভারতীয় বংশোদ্ভূত এই ক্রিকেটারের স্মৃতিচারণা, ‘বয়সভিত্তিক দলে আমি আর রাহানে একসঙ্গে অনেক খেলেছি। আমাদের দুজনের বাড়ি অনেক দূরে হওয়ায় খেলার বাইরে একসঙ্গে খুব বেশি সময় কাটানোর সুযোগ পেতাম না। কিন্তু সে আমার ভাইয়ের মতো। ভারত ছেড়ে আসার পর যোগাযোগটা বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। তবে দুবাই বিমানবন্দরে একবার তার সঙ্গে হঠাৎ দেখা হয়েছিল। সে ভারতের “এ” দলের হয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা সফর শেষ করে ফিরছিল। মনে হলো, আমরা দুজন পুরোনো দিনে ফিরে গেছি। বিশ্বকাপে এসে এখনো দেখা হয়নি। তবে দেখা হলে আমি তাকে একবার ডিনার করাতে চাই।’
ভারত-আরব আমিরাত ম্যাচ মুখোমুখি দাঁড় করাতে পারে আরেক জোড়া বন্ধুকেও। ভারতীয় বংশোদ্ভূত অলরাউন্ডার কৃষ্ণা চন্দ্রন বেঙ্গালুরু কলেজ ক্লাবে একসঙ্গে খেলেছেন ভারতীয় অলরাউন্ডার স্টুয়ার্ট বিনির সঙ্গে। ভারতের বিশ্বকাপ দলে থাকলেও এখনো কোনো ম্যাচ খেলেননি বিনি। তবে মোহাম্মদ শামির চোটের কারণে আজ সেই সুযোগটা পেয়ে যেতে পারেন রজার বিনি-তনয়। চন্দ্রনের গল্পটা অনেকটাই পাতিলের মতো। দেশ ছেড়ে পরবাসী হয়ে পরে আমিরাত জাতীয় দলে জায়গা পেয়েছেন। বিশ্বকাপেও দুটো ম্যাচ খেলেছেন। তবে আজ শুধু বন্ধুর মুখোমুখি হওয়ার কথা ভেবে নয়, জন্মভূমির বিপক্ষে খেলবেন বলেই বেশি রোমাঞ্চিত চন্দ্রন, ‘কেরালার যে শহরে আমি জন্মেছি, সেখানকার মানুষের জন্যও এটা একটা বড় মুহূর্ত। ওরা আমাকে টেনিস বলে গলির ক্রিকেটে খেলতে দেখেছে। আজ আমাকে ভারতের বিপক্ষে খেলতে দেখবে টেলিভিশনে, সেটাও আবার বিশ্বকাপে!’ এএফপি।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন