default-image

মুঠোফোনে সিডন্স প্রথম আলোকে বলেছেন, ‘টেস্টে আমাদের লম্বা সময় ব্যাটিং করা শিখতে হবে। ওয়ানডে ক্রিকেট ভালো যাচ্ছে। কিন্তু টেস্টে আমাদের উন্নতি করতে হবে।’ উন্নতির জায়গাগুলো কোথায়, সেটাও জানালেন সিডন্স, ‘আমরা দ্রুত উইকেট হারিয়ে ফেলি। জোড়ায় জোড়ায় উইকেট পড়ে। কখনো কখনো মুহূর্তের মধ্যে ৩-৪ উইকেটও হারিয়ে ফেলি। এটা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। ছেলেদের লম্বা সময় ব্যাটিং করার দিকে মনোযোগী হতে হবে।’

দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের উদাহরণ টেনেই সিডন্স বলছিলেন, ‘সেখানে আমরা ৩০-৪০-৫০ করে আউট হয়েছি। সেগুলোকে আরও বড় ইনিংসে পরিণত করতে পারিনি। সেঞ্চুরি করতে হবে, বড় সেঞ্চুরি। টেস্ট জিততে হলে আমাদের এটা করতেই হবে।’

default-image

সময় ব্যাটসম্যানরা বড় ইনিংস খেলতে পারলে দলও পাবে বড় স্কোর। তাহলেই সম্ভব প্রতিপক্ষকে চাপে রাখা। সিডন্সের কথা, ‘আমরা ৩০০-৩৫০ রান করছি। সেটাকে ৪০০-৪৫০ রানে নিয়ে যেতে হবে। তাহলেই প্রতিপক্ষ চাপে থাকবে।’

১৫ মে শুরু শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই টেস্টের সিরিজকে সামনে রেখে এখন মাঠে নামার অপেক্ষায় ক্রিকেটাররা। ৮ মে ঢাকায় পা রাখবে দিমুথ করুনারত্নের দল। বাংলাদেশ দল সেদিনই যাবে প্রথম টেস্টের ভেন্যু চট্টগ্রামে। ৯ মে শুরু হবে অনুশীলন। ঈদের ছুটি শেষে আগামীকালের মধ্যেই টেস্ট দলের ক্রিকেটারদের ঢাকায় চলে আসার কথা। সিডন্স অবশ্য এর মধ্যেই ঢাকায় এসে পৌঁছেছেন। প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গোসহ কোচিং স্টাফের বাকি সদস্যদের আসার কথা আগামীকাল সন্ধ্যার মধ্যে।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন