প্রভিন জয়াবিক্রমা।
প্রভিন জয়াবিক্রমা।ছবি: এএফপি

২০১২ সালের পর কিংবদন্তি মুত্তিয়া মুরালিধরনের শূন্যতা শ্রীলঙ্কাকে খুব একটা টের পেতে দেননি রঙ্গনা হেরাথ। টেস্ট ইতিহাসের সবচেয়ে সফল বাঁহাতি স্পিনার হয়ে অবসর নেন হেরাথ। হেরাথের সেরা সময়ে তাঁকে সঙ্গ দিয়েছেন অফ স্পিনার দিলরুয়ান পেরেরা।

এরপর শ্রীলঙ্কার স্পিন–ঐতিহ্যে কিছুটা ভাটা পড়লেও জোয়ার আসতে বেশি সময় লাগল না। চোটে পড়া বাঁহাতি স্পিনার লাসিথ এম্বুলদেনিয়া বছরের শুরুতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দারুণ বোলিং করেন। বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ দিয়ে ক্রিকেট–বিশ্বকে নিজেদের আগমনী বার্তা জানিয়ে দিলেন বাঁহাতি স্পিনার প্রভিন জয়াবিক্রমা ও অফ স্পিনার রমেশ মেন্ডিস। পাল্লেকেলেতে দুজন মিলে ১৭ উইকেট নিয়ে শ্রীলঙ্কাকে টেস্ট জেতাতে বড় ভূমিকা রাখেন।

এই দুজনের মাঝেই যেন ভবিষ্যতের মুরালি কিংবা হেরাথ-পেরেরাকে দেখতে পাচ্ছেন লঙ্কান অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে। বাংলাদেশকে ১-০ ব্যবধানে হারিয়ে সিরিজ জেতার পর করুনারত্নে সবচেয়ে বেশি উচ্ছ্বাস দেখিয়েছেন তাঁর দুই স্পিনারকে নিয়ে, ‘আমাদের কোনো অভিজ্ঞ বোলার না থাকলেও ওরা একদম অভিজ্ঞ ক্রিকেটারের মতো খেলেছে। প্রাভিন দারুণভাবে চাপ সামলেছে। রমেশ আরও উন্নতি করতে পারে এই জায়গায়। ১৫-২০টা টেস্ট খেললে তারও উন্নতি হবে। স্পিনার হিসেবে প্রাভিন মৌলিক কাজগুলো খুবই ভালোভাবে করে, যা রঙ্গনাকে করতে দেখতাম। এই পর্যায়ে লাইন-লেংথের ধারাবাহিকতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। রমেশও অন্য প্রান্ত থেকে প্রাভিনকে সাহায্য করেছে চাপ সৃষ্টি করে। এটা আমাদের টেস্টের ভবিষ্যতের জন্য ভালো খবর।’

বিজ্ঞাপন
default-image

বাংলাদেশ সিরিজে তরুণ বোলারদের জন্য ভালো মঞ্চ গড়ে দিয়েছেন ব্যাটসম্যানরা। দুই টেস্টেই নিজেদের প্রথম ইনিংসে বড় স্কোর করেছে শ্রীলঙ্কানরা। এতে নেতৃত্ব দিয়েছেন অধিনায়ক করুনারত্নে নিজেই। তিন ইনিংস খেলে করুনারত্নে করেছেন ৪২৮ রান। বাংলাদেশের বিপক্ষে অধিনায়ক হিসেবে এক সিরিজে সবচেয়ে বেশি রানের রেকর্ড এটিই। এ ছাড়া ওপেনার লাহিরু থিরিমান্নে, ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা সেঞ্চুরি করেছেন। নতুনদের মধ্যে ওসাদা ফার্নান্ডো, নিরশান ডিকভেলা ভালো খেলেছেন।

গত কয়েক সিরিজের ব্যাটিং–ব্যর্থতার পর দলের ব্যাটিংয়ে ধারাবাহিকতা ফেরায় খুশি লঙ্কান অধিনায়ক, ‘ব্যাটসম্যানরা প্রায় সবাই প্রথম টেস্টে রান পেয়েছে। যারা রানখরায় ছিল তারাও রান পেয়েছে। এটা মানসিকভাবে অনেক সাহায্য করবে।’

নিজের ব্যাটিং ফর্মের জন্য করুনারত্নে প্রধান কোচ মিকি আর্থারকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন, ‘গত কয়েক সিরিজে রান না পাওয়ায় কোচের সঙ্গে আলোচনা করি। এরপর ওয়েস্ট ইন্ডিজ ইনিংসের শেষ ইনিংসে রান পাই। সেটাই বাংলাদেশ সিরিজে ধরে রেখেছি। আমি এখন প্রথম ১০-১৫ ওভার দেখে খেলছি। এরপর বাকিটা সহজ হয়ে যাচ্ছে।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন