মোহনীয় ব্যাটিংয়ে আজ মুগ্ধ করেছেন লিটন দাস
মোহনীয় ব্যাটিংয়ে আজ মুগ্ধ করেছেন লিটন দাসছবি: প্রথম আলো

লিটন দাসের ব্যাটিংয়ের ধরন অপছন্দের সুযোগ নেই। ছন্দে থাকলে যেন তুলি হাতে চিত্রকর! উইলোকে তুলি বানিয়ে খেলেন মাঠের চারপাশে। চোখের আরাম বলে যদি কিছু থেকে থাকে, তা টের পাওয়া যায় ছান্দসিক লিটনের ব্যাটিং দেখে।

বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে আজ তাঁর এমন এক ইনিংস দেখে মুশফিকুর রহিম নিজেকে আর ধরে রাখতে পারেননি।

বিজ্ঞাপন

দিনের শেষ ম্যাচে মিনিস্টার রাজশাহীকে ১ রানে হারিয়েছে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম। আগে ব্যাট করে ৫ উইকেটে ১৭৬ রান তুলেছিল মোহাম্মদ মিঠুনের দল।

১ ছক্কা ও ৯ চারে ৫৩ বলে ৭৮ রান করেন চট্টগ্রাম ওপেনার লিটন। উইকেটে ছিলেন শেষ পর্যন্ত। তাঁর এই ইনিংস নিশ্চিতভাবেই চোখের আরাম দিয়েছে টিভি দর্শকদের।

স্কয়ার কাট, ড্রাইভ, ফ্লিক ও পুশগুলো ছিল চোখজুড়ানো। রাজশাহীর মিডিয়াম পেসার ফরহাদ রেজার এক ওভারেই টানা তিন বলে মেরেছেন তিন চার।

default-image

লিটনের এমন ইনিংস দেখে বেক্সিমকো ঢাকা অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমের ফেসবুক স্ট্যাটাস, ‘ভাই, কী দুর্দান্ত ইনিংস! মিলিয়ন ডলার ম্যান! তোমার খেলা দেখতে দুর্দান্ত লাগে। এমন প্রতিভা এবং মানের ব্যাটসম্যান আমি কখনো দেখিনি। আশা করি এবং প্রার্থনা রইল, দেশের হয়েও তুমি এই ফর্ম ধরে রাখতে পারবে।’

মুশফিকের এই স্ট্যাটাসে লিটনের খুশি হওয়ারই কথা। অবশ্য মাঠ থেকেও শেষ পর্যন্ত খুশি মনে ফিরতে পেরেছেন চট্টগ্রাম ওপেনার।

জয়ের জন্য শেষ ওভারে ১৪ রান দরকার ছিল রাজশাহীর। উইকেটে নুরুল হাসান ও রনি তালুকদার। শেষ ওভারটা স্বাভাবিকভাবেই এমন পরিস্থিতিতে অভিজ্ঞ পেসার মোস্তাফিজুর রহমানকে দিয়ে করিয়েছেন চট্টগ্রাম অধিনায়ক মিঠুন।

বিজ্ঞাপন

প্রথম বলে নুরুলকে তুলে নিয়ে আস্থার প্রতিদান দেন মোস্তাফিজ। পরের দুই বলে রনি তালুকদার কোনো রান নিতে পারেননি।

কিন্তু পরের দুটি বলে ছক্কা ও চার মেরে ম্যাচ জমিয়ে ফেলেন রনি। ছক্কা মেরেছেন বোলারের মাথার ওপর দিয়ে। আর চার রান এসেছে উইকেটরক্ষকের ভুলে।

শেষ বলে দরকার ছিল ৪ রান। মোস্তাফিজের ফুল টস বল স্ট্রেট দিয়ে জোরে মারার চেষ্টা করেও পারেননি রনি। ২ রান নিতে পারায় ১ রানের জয়ে শেষ পর্যন্ত স্বস্তির নিশ্বাস ফেলতে পারে চট্টগ্রাম।

default-image

রাজশাহীর হয়ে ৪৪ বলে ৫৮ রান করেন ওপেনার আনিসুল ইসলাম। ১৯ বলে ২০ রানে করে আউট হন মোহাম্মদ আশরাফুল। নাজমুল হোসেন শান্তর ব্যাট থেকে এসেছে ২৫ রান।

এর আগে চট্টগ্রামের হয়ে শেষ দিকে দ্রুত রান তুলেছেন মোসাদ্দেক হোসেন। ২ ছক্কা ও ২ চারে ২৮ বলে ৪২ রান করেন তিনি। ২৫ বলে ৩৪ রান করেন সৌম্য সরকার।

রাজশাহীর হয়ে ৩ উইকেট মুকিদুল ইসলামের। চট্টগ্রামের হয়ে মোস্তাফিজও নেন ৩ উইকেট।

মন্তব্য করুন