বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

টুর্নামেন্টের শুরুতে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা জস বাটলার হঠাৎ করে নিজেকে হারিয়ে ফেলেছেন। আগের ম্যাচে তবু ঝড় তুলতে পেরেছিলেন আউট হওয়ার আগে। আজ ১১তম যখন ফিরছেন, নামের পাশে মাত্র ৭ রান। বাটলার আউট হতেই রাজস্থান আবারও নিজেদের ব্যর্থ পরীক্ষাটা আজ আবার করল।

প্রথম কয়েক ম্যাচে রবিচন্দ্রন অশ্বিনকে তিনে নামিয়ে পিঞ্চ হিটারের ভূমিকা দেওয়া হয়েছিল। প্রতিবারই ব্যর্থ হয়েছেন এই অফ স্পিনার। এমন নয় যে ডানহাতি-বাঁহাতি কম্বিনেশন ধরে রাখার জন্য তাঁকে নামানো হচ্ছিল। যে দলের অধিনায়ক সঞ্জু স্যামসন এবং যে দলে রিয়ান পরাগ ও রাসি ফন ডার ডুসেন আছে, সে দলে তো এই চিন্তা হাস্যকরই।

default-image

তবু আজ অশ্বিনকে আবার তিনে দেখা গেল। এবং আবারও ব্যর্থ অশ্বিন। নিজের টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে প্রথম পঞ্চাশের দেখা হয়তো পেয়েছেন, কিন্তু তাঁকে উদ্দেশ্যে নামানো সেটা পূরণ হয়নি। ৩৭ বলে ৫০ রান তুলে পরের বলেই আউট। চারে নামা দেবদূত পাড়িক্কাল ৩০ বলে ৪৮ রান করলেও মিডল অর্ডার ও লেট অর্ডারে কেউই রানের গতি বাড়াতে পারেননি। তাতে ৬ উইকেটে ১৬০ রানে থেমেছে রাজস্থান।

তাড়া করার শুরুটা খুব বাজে হয়েছে দিল্লির। শূন্য রানেই ফিরেছেন শিকর ভরত। রাজস্থানের তাই প্লে-অফ নিশ্চিতের সম্ভাবনা জেগেছিল। কিন্তু দিল্লির অস্ট্রেলিয়ান জুটি তা আর হতে দেয়নি। মিচেল মার্শ ও ডেভিড ওয়ার্নারের ১৪৪ রানে ম্যাচ এক প্রকার শেষ করে দিয়েছে। ৬২ বলে ৮৯ রানের দারুণ এক ইনিংস খেলেছেন মার্শ। তুলনামূলক ধীরস্থির ইনিংসে জয় নিশ্চিত করে তবেই মাঠ ছেড়েছেন ওয়ার্নার। ৪১ বলে ৫২ রানে অপরাজিত ছিলেন।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন