বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

ওই ওভারে মাত্র ১ রান দেওয়া সাকিব তৃতীয় বলে তুলে নেন যশস্বী জয়সোয়ালকে। রিভার্স সুইপ করতে গিয়ে বোল্ড হয়ে যান জয়সোয়াল। এরপর সাকিবকে আর বোলিংয়ে আনার দরকার পড়েনি কলকাতার। কলকাতার অন্য বোলাররা একের পর এক উইকেট নিয়ে ছন্নছাড়া বানিয়ে দেন রাজস্থানের ইনিংস।

৩৫ রানে প্রথম ৭ উইকেট হারানো রাজস্থান যে শেষ পর্যন্ত ৮৫ করেছে, তাতে বড় অবদান রাহুল তেওয়াতিয়ার। সাতে নেমে শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হওয়ার আগে ৪৪ রান করেছেন তেওয়াতিয়া। কলকাতার পেসার শিভাম মাভি ২১ রানে ৪ ও লকি ফার্গুসন ১৮ রানে নিয়েছেন ৩ উইকেট।

default-image

এর আগে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে শুবমান গিল ও ভেঙ্কটেশ আইয়ারের ওপেনিং জুটিতে ৭৯ রান তোলে কলকাতা। ৩৫ বলে ৩৮ রান করে ফেরেন আইয়ার, গিল করেন ৪৪ বলে ৫৬ রান। এরপর নিতিশ রানার ৫ বলে ১২, রাহুল ত্রিপাঠির ১৪ বলে ২১ রানের ইনিংস এবারের আইপিএলে সর্বোচ্চ শারজায় সংগ্রহ এনে দেয় কলকাতাকে।

মোস্তাফিজকে পাওয়ার প্লেতে আনেননি রাজস্থান অধিনায়ক সঞ্জু স্যামসন। অষ্টম থেকে ১৯তম ওভারের মধ্যে তিনটি ভিন্ন স্পেলে বোলিং করেছেন মোস্তাফিজ কিন্তু উইকেটের দেখা পাননি।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন