default-image
>বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড তিন টেস্ট সিরিজের শুরুটা একেবারে খারাপ হয়নি বাংলাদেশের। ৫৭ রানের উদ্বোধনী জুটির পর ফিরেছেন সাদমান (২৪)। ৩৩ রানে অপরাজিত তামিমের সঙ্গী হওয়া মুমিনুল ফিরেছেন ১২ রান করেই। তামিম শেষ পর্যন্ত সেঞ্চুরি পেলেও প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের স্কোরটা ২৩৪ রানের বেশি হয়নি

সাদাপোশাকের মধ্যেই একটা শোকের আবহ আছে। এর মধ্যে বাহুতে কালো বন্ধনী। আগুনে গ্রাস করা ছাই হয়ে যাওয়া জীবন আর স্বপ্নকে আজ শ্রদ্ধা জানাচ্ছে বাংলাদেশ দল। শ্রদ্ধা জানাচ্ছে সৈয়দ আলতাফ হোসেনকেও, বাংলাদেশের ক্রিকেটের অন্যতম স্তম্ভ সদ্যই প্রয়াত হয়েছেন। সকালের মিঠে রোদ আর পাতায় নাচন তোলা ঝিরঝিরে বাতাসের মধ্যেও একটা মন খারাপের গন্ধ লুকিয়ে। বিদেশের মাটিতে প্রথম জাতীয় সংগীত শোনার রোমাঞ্চ ছাপিয়ে বুকে কেমন জানি চিনচিনে অনুভূতি হলো।

ওয়ানডে সিরিজের দুঃস্মৃতি পেছনে ফেলে বাংলাদেশ দল টেস্টে ভালো করতে চায়, সেই প্রতিজ্ঞা তো আছেই। তামিম ও সাদমানের ব্যাটের কোলে রোদ হেসেছে হ্যামিল্টনে। তবে এর মধ্যে, ঠিক মন খারাপ করে নয়, একটু যেন বিমর্ষ দেখাল মোস্তাফিজকে। নাকি তা দেখার ভুল? মোস্তাফিজের নিজের ভেতরে টেস্টের আগুন কতটা আছে, এ প্রশ্নটা উঠতে শুরু করেছে। সিরিজের প্রথম টেস্টে মোস্তাফিজ একাদশে জায়গা পেলেন না। নামটা মোস্তাফিজ বলেই হয়তো টিম ম্যানেজমেন্ট এটিকে ঠিক বাদ পড়া বলবে না। ‘বিশ্রাম’ শব্দটা শুনতে ভালো লাগে, কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা তো বাদ পড়াই!

মোস্তাফিজের একাদশে না থাকার ফলে লাভবান হয়েছেন ইবাদত হোসেন। দুই বছর আগে থেকে জাতীয় দলের আশপাশে ঘুরঘুর করতে থাকা ইবাদত অবশেষে জাতীয় দলের হয়ে খেলার স্বাদ পাচ্ছেন। বল তুলে নিতে নিশ্চয়ই হাত নিশপিশ করছে। ইবাদতের জন্য আরও খুশির ব্যাপার হলো, বাংলাদেশের পুরো পেস আক্রমণ হয়ে গেল ‘সিলটি’ ‘সিলটি’। খালেদ ও আবু জায়েদও সিলেটের। তবে এই পেসত্রয়ী নিশ্চয়ই দেরিতে বল পেলেই খুশি হবেন। টসে হেরে ব্যাট করতে নামা বাংলাদেশ ইবাদতদের সেই বার্তাই দিচ্ছে অন্তত শুরুতে।

হ্যামিল্টনে পাঁচ দিনেই এমন ঝলমলে রোদের পূর্বাভাস আছে। সেটা আবহাওয়া অফিসের বার্তা। তামিম ইকবালের সেঞ্চুরির পরও প্রথম ইনিংসে ২৩৪ রানে অলআউট হওয়া বাংলাদেশের খেলায়ও পাঁচ দিন ঝলমলে রোদ থাকে কি না, সেটা নিয়ে অবশ্য ঘোর সংশয় আছে।

মোস্তাফিজ এই অবকাশে ড্রেসিংরুমে বসে নিজেকে নিয়ে বরং একটু ভাবুন। ২০ ইনিংসে বল করে ২৭ উইকেট...টেস্টে এই পরিসংখ্যান বিব্রত হওয়ার মতোই। অথচ ওয়ানডের মতো টেস্টেও তাঁর শুরুটা হয়েছিল উজ্জ্বল, ইতিহাসে প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে ওয়ানডে এবং টেস্ট অভিষেকে ম্যাচসেরার কীর্তি গড়েছিলেন। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সেই টেস্টের প্রথম ইনিংসে ৩৭ রানে ৪ উইকেটটাই তাঁর ক্যারিয়ারের সেরা হয়ে আছে। সর্বশেষ ৪ ইনিংসে মাত্র ১ উইকেট...সেটিও দেশের উইকেটে, যেখানে বল কাট করাতেই বেশি সুবিধা। তিন ইনিংসে উইকেটশূন্য থাকার পর বিশ্রামটাকে বাদ পড়ার শব্দার্থ বলেই মনে হচ্ছে!

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন