যেখানে ডাকবে সেখানেই খেলতে চান শ্রীশান্ত

তৎকালীন অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির সঙ্গে শান্তাকুমারণ শ্রীশান্ত।
তৎকালীন অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির সঙ্গে শান্তাকুমারণ শ্রীশান্ত।ছবি : টুইটার
বিজ্ঞাপন

সাত বছর ছিলেন নির্বাসনে। সদ্যই শেষ হয়েছে সেই নির্বাসন। খুব বেশি দেরি করেননি, সঙ্গে সঙ্গেই জানিয়ে দিয়েছেন নিজের ইচ্ছেটার কথা। যে ইচ্ছেটা গত সাত বছর ধরে সযত্নে লালন করেছেন নিজের মধ্যে। ক্রিকেটে ফিরতে চান তিনি। আবারও বল হাতে ছুটে যেতে চান বাইশ গজে দাঁড়িয়ে থাকা ব্যাটসম্যানের দিকে।


বলা হচ্ছিল ভারতের পেসার শান্তাকুমারণ শ্রীশান্তের কথা। ভারতের হয়ে ২০০৭ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ও ২০১১ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপ জেতা এই তারকা আইপিএলে করেছিলেন স্পট ফিক্সিং। নিষিদ্ধ হয়েছিলেন সাত বছর। সে নিষেধাজ্ঞা শেষ হয়েছে দুদিন আগে। শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ক্রিকেটে ফেরার জন্য ব্যাকুল হয়ে পড়েছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

ক্রিকেট খেলার জন্য বিশ্বের যেকোনো প্রান্তে যেতে রাজি এই পেসার, ‘যেখানে আমায় ডাকবে আমি খেলতে চলে যাব। আমি অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড ও শ্রীলঙ্কার বিভিন্ন এজেন্টের সঙ্গে কথা বলছি। কারণ আমি এসব দেশের ক্লাব পর্যায়ে ক্রিকেট খেলতে চাই। আমার লক্ষ্য নিজ দেশের হয়ে ২০২৩ বিশ্বকাপ খেলা। আরেকটা ইচ্ছা হলো লর্ডসে ম্যাচ খেলা, যেখানে এমসিসি বিশ্ব একাদশের বিপক্ষে খেলবে।’


আইপিএলে স্পট ফিক্সিংয়ের অভিযোগে ২০১৩ সালে ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত হয়েছিলেন শ্রীশান্ত। রাজস্থান রয়্যালস ফ্র্যাঞ্চাইজিতে স্পট ফিক্সিং করছেন, এমন অভিযোগে শ্রীশান্ত ছাড়াও তাঁর দুই সতীর্থ অজিত চান্ডিলা ও অঙ্কিত চাভানকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। শাস্তি হিসেবে শ্রীশান্তকে আজীবন ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ করেছিল বিসিসিআই। তবে এই সিদ্ধান্ত মেনে নেননি শ্রীশান্ত। দীর্ঘ আইনি লড়াই শুরু করেছিলেন এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে। ফলে ২০১৫ সালে শ্রীশান্তকে সকল অভিযোগ থেকে খালাস করে দিল্লির একটি বিশেষ হাইকোর্ট।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পরে আবার হাইকোর্টের একটি বিভাগীয় বেঞ্চ শাস্তি নতুন করে বহাল করে। তা দেখে শ্রীশান্ত আবার আরজি করেন সুপ্রিম কোর্টে। ২০১৮ সালে শ্রীশান্তের ওপর থাকা আজীবন নির্বাসনের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করতে বিসিসিআইকে নির্দেশ দেয় কেরালার হাইকোর্ট। সে নির্দেশের প্রেক্ষিতে শ্রীশান্তের শাস্তির মেয়াদ কমে সাত বছরে নেমে আসে। গত ১৩ সেপ্টেম্বর সেই মেয়াদকাল শেষ হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

৩৭ বছর বয়সী এই পেসার এ পর্যন্ত ভারতের জার্সি গায়ে খেলেছেন ২৭ টেস্ট, ৫৩ ওয়ানডে ও ১০ টি-টোয়েন্টি। উইকেট নিয়েছেন যথাক্রমে ৮৭, ৭৫ ও ৭টি করে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন