বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

তবে টুর্নামেন্টজুড়ে উমরানের এমন পারফরম্যান্স দেখে মুগ্ধ ওয়েস্ট ইন্ডিজ কিংবদন্তি ব্রায়ান লারা। তিনি এবারের আইপিএলে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের কোচিং স্টাফের অংশ। ক্যারিবীয় কিংবদন্তি তো উমরানের সঙ্গে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে তাঁর এক সতীর্থ ফাস্ট বোলারেরই তুলনা টেনেছেন।

উমরানকে লারার অনেকটা ফিদেল এডওয়ার্ডসের মতোই মনে হয়। সেটি তিনি নিজেই বলেছেন, ‘উমরান আমাকে আমার খেলোয়াড়ি জীবনের কথা মনে করিয়ে দিয়েছে। আমি আমার ক্যারিয়ারে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কিংবদন্তি ফাস্ট বোলারদের খেলতে দেখেছি। স্যার ম্যালকম মার্শাল, কোর্টনি ওয়ালশ, কার্টলি অ্যামব্রোস...একেকজন একেক রকম ছিলেন। কিন্তু উমরান আমাকে ফিদেল এডওয়ার্ডসের কথাই মনে করিয়ে দেয়। ফিদেলও যখন খেলা শুরু করেছিল, তখন সে খুব জোরে বোলিং করত।’

default-image

ভারতীয় তরুণকে কিছু পরামর্শও দিয়ে রেখেছেন লারা, ‘উমরানের ক্ষেত্রে আমি মনে করি, সে যদি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলে... আমি মনে করি, সে অবশ্যই খেলবে, তাহলে তাঁকে বুঝতে হবে, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অনেক ব্যাটসম্যানই গতিকে খুব বেশি ভয় পায় না। তাঁকে ভালো করতে হলে গতির সঙ্গে সঙ্গে অনেক অস্ত্রই ভান্ডারে যোগ করতে হবে।’

default-image

উমরান সেটি করবে বলেই মনে করেন ক্যারিবীয় কিংবদন্তি, ‘উমরান খুব দ্রুত শিখতে পারে। তাঁর শেখার ইচ্ছাটা আছে পুরোদমে। নেটে দেখবেন, সে সব সময়ই কাউকে না কাউকে কিছু না কিছু জিজ্ঞেস করছে, জানতে চাচ্ছে। দুর্দান্ত লাগছে যে ভারত তাঁর মতো একজন ফাস্ট বোলার পেয়েছে।’

লারার ফিদেল এডওয়ার্ডসের কথা বিশেষভাবে মনে করার একটা কারণ আছে। এই এডওয়ার্ডসকে নেটে খেলেই তাঁকে দারুণ পছন্দ হয়েছিল লারার। ২০০৩ সালে লারার কারণেই এডওয়ার্ডস ওয়েস্ট ইন্ডিজের টেস্ট দলে ঢুকেছিলেন। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে কিংস্টনে তাঁর অভিষেকে লারাকে হতাশ করেননি এডওয়ার্ডস। অভিষেকেই ৩৬ রানে ৫ উইকেট তুলে নিয়েছিলেন। দ্বিতীয় ইনিংসে নিয়েছিলেন আরও এক উইকেট।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন