বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

তাসমান দলের হয়ে খেলতে গিয়েই ঝামেলা বাধিয়েছিলেন টিম পেইন। ২০১৭ সালের নভেম্বরে ক্রিকেট তাসমানিয়ার এক নারী কর্মীকে কিছু যৌন উত্তেজক বার্তা ও অশ্লীল ছবি পাঠিয়েছিলেন পেইন। সেই নারী কর্মী বিষয়টি ক্রিকেট তাসমানিয়া ও ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়াকে জানান। এটা নিয়ে তদন্তও হয়। কিন্তু ক্রিকেট তাসমানিয়া ও ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার কারও কাছেই তখন মনে হয়নি যে পেইন আচরণবিধি ভেঙেছেন! পেইনকে তারা কোনো ধরনের শাস্তি না দিয়েই ছেড়ে দেয়।

অস্ট্রেলিয়ার সংবাদমাধ্যম নিউজ কর্প বিষয়টি সবার সামনে নিয়ে এসেছে চার বছর পর। এরপর অন্য সব সংবাদমাধ্যমেও এ নিয়ে খবর ছাপা হয়েছে। তুমুল সমালোচনার মধ্যেই পেইন অস্ট্রেলিয়ার নেতৃত্ব থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন।

default-image

১৯ তারিখ চমকে দেওয়া সে সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন পেইন। ওদিকে আজ একই ধরনের ঘটনায় আজ ক্রিকেট তাসমানিয়ার চাকরি হারালেন শ্যানন টাব। হেরাল্ড সান জানিয়েছে, তাসমানিয়ার সাবেক এই ক্রিকেটার নাকি একই নারীকে যৌন উত্তেজক বার্তা পাঠিয়েছিলেন। পেইনের বোনের স্বামী টাব ক্রিকেট ক্যারিয়ার শেষে ক্রিকেট তাসমানিয়ার অধীন অ্যাডিলেডের প্রিন্স আলফ্রেড কলেজের প্রথম একাদশের কোচ হয়েছিলেন। গত আগস্টে এমন খবরও বেড়িয়েছিল, ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া একাদশেও চাকরি পেতে যাচ্ছেন টাব।

জানা গেছে, পেইনের মতো টাবের ঘটনাটিও ২০১৮ মৌসুমের শুরুর দিকে। এ ব্যাপারে হেরাল্ড সানের প্রশ্নের মুখে টাব বলেছেন, ‘আমি দুঃখিত, এ ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করব না।’ এদিকে ক্রিকেট তাসমানিয়া বলেছে, ‘এ ব্যাপারে কোনো প্রশ্নের জবাব আমরা দিব না।’ তবে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া জানিয়েছে, টাবের ব্যাপারে যে তদন্ত হচ্ছে, তাদের এ ব্যাপারে জানানো হয়েছিল।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন