দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ জিতেছে পাকিস্তান।
দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ জিতেছে পাকিস্তান। ছবি: এএফপি

কাগিসো রাবাদা, আনরিখ নর্কিয়া, লুঙ্গি এনগিডি, কুইন্টন ডি ককরা নেই। কোয়ারেন্টিন নিয়ম ঠিকভাবে মেনে আইপিএল খেলতে জাতীয় দল রেখে ভারতের উড়াল দিয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার এসব তারকা ক্রিকেটার। সেঞ্চুরিয়নে আজ ওয়ানডে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে তাই তাদের ছাড়াই পাকিস্তানের মুখোমুখি হয়েছিল সাদামাটা দল গড়া দক্ষিণ আফ্রিকা। ফলও মিলেছে হাতেনাতে। ২৮ রানের হারে ওয়ানডে সিরিজ ২-১ ব্যবধানে হারল প্রোটিয়ারা।

ফখর জামানের টানা দ্বিতীয় সেঞ্চুরি ও বাবর আজমের ৯৪ রানে ভর করে ৭ উইকেটে ৩২০ রান তুলেছিল পাকিস্তান। তাড়া করতে নেমে শেষ তিন ওভারে জিততে ৫০ রান দরকার ছিল দক্ষিণ আফ্রিকার। এই কঠিন সমীকরণ শেষ ওভারে গিয়ে আরও কঠিন হয়—৬ বলে দরকার ৩০। শেষ ওভারে ড্যারিন ডুপাভিলন আউট হওয়ায় থেমে যায় প্রোটিয়ারা। ২৯২ রানে অলআউট হয় স্বাগতিক দল।

বিজ্ঞাপন
default-image

দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে সর্বোচ্চ ৭০ রান ওপেনার ইয়ানেমান ম্যালানের। তবে প্রোটিয়াদের জয়ের আশা দেখিয়েছিল কাইল ভারেইনা ও আন্দিলে ফিকোয়ার ১০৮ রানের ষষ্ঠ উইকেট জুটি। এক ওভারের ব্যবধানে দুজনের আউটেই শেষ প্রতিরোধ।

পাকিস্তানের জয়ের নায়ক ফখর জামান। আগের ম্যাচে ১৯৩ রানের অসাধারণ এক ইনিংস খেলেও দলকে হারতে দেখা ফখর কালও পেয়েছেন সেঞ্চুরি। ১০৪ বলে ১০১ রান করেছেন এই বাঁহাতি। ইমাম-উল-হকের সঙ্গে উদ্বোধনী জুটিতে ১১২ রান তোলার পর দ্বিতীয় উইকেটে অধিনায়ক বাবর আজমকে নিয়ে ৯৪ রান যোগ করেন ফখর। ৬ রানের জন্য সেঞ্চুরি পাননি বাবর। ৫০ ওভারে ৭ উইকেট ৩২০ রান তোলে পাকিস্তান। হাসান আলীকে নিয়ে যার ৪৩-ই শেষ দুই ওভারে তুলেছেন বাবর।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

পাকিস্তান: ৫০ ওভারে ৩২০/৭ (ফখর ১০১, বাবর ৯৪, ইমাম ৫৭, হাসান ৩২*; মহারাজ ৩/৪৫, মার্করাম ২/৪৮)।

দক্ষিণ আফ্রিকা: ৪৯.৩ ওভারে ২৯২ (ম্যালান ৭০, ভেরেইনা ৬২, ফিকোয়াও ৫৪; নেওয়াজ ৩/৩৪, আফ্রিদি ৩/৫৮, রউফ ২/৪৫)।

ফল: পাকিস্তান ২৮ রানে জয়ী।

সিরিজ: ৩-ম্যাচ সিরিজে পাকিস্তান ২-১ এ জয়ী।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: বাবর আজম।

ম্যান অব দ্য সিরিজ: ফখর জামান।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন