default-image
>বিশ্বকাপে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে এক হাজার রান ও ৩০ উইকেট পেয়েছেন সাকিব আল হাসান। সে সঙ্গে বিশ্বকাপের এক আসরে ৪০০ এর বেশি রান ও ১০ উইকেট নেওয়া প্রথম ক্রিকেটারও হয়ে গেছেন সাকিব

শুধু ব্যাটে-বলে নয়, এ বিশ্বকাপে সাকিব আল হাসানের কথাবার্তাতেও যেন অন্যরকম সুর! সাধারণত ব্যক্তিগত রেকর্ড-পরিসংখ্যানকে খুব একটা পাত্তা দিতে চান না তিনি। ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে এক সাংবাদিক জিজ্ঞেস করলেন, রেকর্ডটির কথা তিনি জানতেন কি না। একটু অবাক করে দিয়ে সাকিব জানালেন, রেকর্ডের কথা তাঁর মাথায় ছিল!

কী সে রেকর্ড, এতক্ষণে নিশ্চয়ই তা জানা হয়ে গেছে আপনার। তবে এমন দিনে মধুর রেকর্ডের কথা বারবার শুনলেও নতুনের মতোই লাগে! ক্যারিয়ার সেরা বোলিং ফিগার অর্জনের দিনে আরও বড় রেকর্ডের দখল নিয়েছেন বিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডার। বিশ্বকাপ ইতিহাসে প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে ১০০০ রান ও ৩০ উইকেটের ডাবল পূর্ণ করেছেন সাকিব। এর আগে ৯০০ রান ও ২৫ উইকেটের ডাবল ছিল মাত্র দুজনের, স্টিভ ওয়াহ ও সনাথ জয়াসুরিয়া। সবাইকে ছাপিয়ে সাকিব আজ উঠে গেলেন নতুন এক চূড়ায়।

তাহলে কি রেকর্ডটি মাথায় নিয়েই খেলতে নেমেছিলেন সাকিব? উত্তর শুনে মনে হলো, মনের এক কোনায় নিশ্চয়ই উঁকিঝুঁকি মারছিল রেকর্ডের কথা। প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে খুব সংক্ষেপে বললেন, ‘লক্ষ্য অর্জন করার তাড়না সব সময়ই থাকে। পূরণ করতে পারলে ভালো লাগে।’

আরেকটি রেকর্ডের কথা বোধ হয় এখনো জানেন না সাকিব। এ বিশ্বকাপে এখনো পর্যন্ত ৪৭৬ রান করেছেন, উইকেট সংখ্যাও হয়ে গেছে ১০টি। প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে বিশ্বকাপের এক আসরে ৪০০ এর বেশি রান ও ১০ উইকেটের মালিক হয়ে গেছেন তিনি।

২০১৯  ক্রিকেট বিশ্বকাপে এখনো পর্যন্ত যে তিনটি ম্যাচে জিতেছে বাংলাদেশ, সব কটিতেই ম্যাচসেরা তিনি। বাংলাদেশ দলে তিনি কি তাহলে ‘ওয়ান ম্যান আর্মি’? সাকিব এক কথায় নাকচ করে দিলেন তা। মুশফিক-মাহমুদউল্লাহদের পাশাপাশি বোলারদেরও দিতে চাইলেন প্রাপ্য কৃতিত্বটা, ‘মোস্তাফিজ-সাইফ দুজনেই ৯-১০টার মতো উইকেট নিয়েছে। আমাদের পেসারদের হয়তো অত গতি বা স্কিল নেই। কিন্তু তাঁদের পক্ষে যতটুকু সম্ভব, সবটুকু দিয়েই চেষ্টা করছে তারা।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন