মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের হয়ে শেষ ম্যাচটা খেলেছেন রোহিত শর্মা। মুম্বাইয়ের অনুশীলনে রোহিত
মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের হয়ে শেষ ম্যাচটা খেলেছেন রোহিত শর্মা। মুম্বাইয়ের অনুশীলনে রোহিত ছবি: টুইটার

হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট, মাত্রার তারতম্যের কারণে যেটি সারতে সাধারণত ৪ থেকে ৮ সপ্তাহের মতো সময় লাগে। কিন্তু এই একটি চোট যেন ভারতের ক্রিকেটকে গত কয়েক দিনে মাতিয়ে রেখেছে।

চোটটা যে রোহিত শর্মার, আর চোটের কারণে তাঁকে এ মাসের শেষদিকে শুরু হতে যাওয়া অস্ট্রেলিয়া সফরের দল থেকে বাদ দিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট দল!

বিজ্ঞাপন

গত ২৬ অক্টোবর অস্ট্রেলিয়া সফরের ভারত দল ঘোষণার পর থেকেই রোহিতের চোট নিয়ে বিতর্ক যেন থামছেই না! বিতর্ক আরও বাড়ে দল ঘোষণার ঘণ্টাখানেক পরই আইপিএলে নিজের দল মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের হয়ে রোহিতের অনুশীলনে নামার ভিডিওতে। অনেকের ধারণা, এসব চোট-টোট আসলে কিছু নয়, রোহিতকে আসলে বাদ দেওয়া হয়েছে ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলির সঙ্গে তাঁর কথিত দ্বন্দ্বের কারণেই।

ভারতের কোচ রবি শাস্ত্রী রোহিতকে দলের বাইরে রাখার ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে দৃশ্যত ঝামেলা আরও বাড়িয়েছেন। তিনি নির্বাচক কমিটির সঙ্গে ছিলেন না জানালেও শাস্ত্রীর ব্যাখ্যা মানতে মোটেও রাজি নন সাবেক ভারতীয় ওপেনার বীরেন্দর শেবাগ।
এত বিতর্কের আগুনে ঘি ঢালতে পারে ছোট্ট একটা সংবাদও। রোহিত কাল জানিয়ে দিয়েছেন, তাঁর চোট সেরে গেছে।

আইপিএলে কাল সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিপক্ষে ম্যাচের পর চোট নিয়ে প্রশ্নে রোহিতের উত্তর ছিল, ‘মাঠে ফিরতে পেরে খুব ভালো লেগেছে। অনেক দিন বাইরে ছিলাম। এখানে (আইপিএলে) আরও কিছু ম্যাচ খেলার অপেক্ষায় আছি, দেখা যাক এরপর কী হয়। ওটা (হ্যামস্ট্রিং) পুরোপুরি ঠিক আছে।’

রোহিত যখন নিজে তাঁর চোটের সর্বশেষ খবর জানাচ্ছেন, তার কিছুক্ষণ আগেই ভারতের সংবাদ সংস্থা পিটিআইয়ে প্রকাশিত হয় ভারত ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) সভাপতি ও কিংবদন্তি অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলীর একটা সাক্ষাৎকার। যেখানে গাঙ্গুলী বলছিলেন, হ্যামস্ট্রিং ছিঁড়ে যাওয়ায় রোহিতের উচিত হবে না তড়িঘড়ি করে নিজেকে মাঠে ফেরানো।

বিজ্ঞাপন

কদিন আগে রোহিতের চোটের ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে একই সুর ছিল রবি শাস্ত্রীর কণ্ঠেও। ভারতের কোচ তখন নিজের খেলোয়াড়ি জীবনের ঘটনার প্রসঙ্গ টেনে বলেছিলেন, তিনি এভাবে তড়িঘড়ি করেছিলেন বলেই তাঁর আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারটা আরও লম্বা হয়নি। রোহিতকেও একই ভুল করার ব্যাপারে সতর্ক করেছিলেন। পাশাপাশি বিতর্ক থেকে নিজেকে দূরে রেখে শাস্ত্রী বলেছিলেন, তিনি নির্বাচক কমিটিতে ছিলেন না, তাই রোহিতকে দলের বাইরে রাখার সিদ্ধান্তটা তাঁর নয়।

শাস্ত্রীর নির্বাচক কমিটিতে না থাকার এই ব্যাখ্যাই মানতে রাজি নন শেবাগ। রোহিতের চোটের ব্যাপারটা ভারতীয় বোর্ড (বিসিসিআই) যেভাবে সামলাচ্ছে, সেটি নিয়ে শুরু থেকেই সমালোচনা করে আসা শেবাগ পাল্টা প্রশ্ন তুলেছেন। ক্রিকবাজে শেবাগ বলেছেন, ‘রোহিতের চোটের অবস্থা সম্পর্কে রবি শাস্ত্রী জানতেন না, এটা সম্ভব বলেই মনে করি না আমি। তিনি যদি নির্বাচক কমিটিতে না-ও থেকে থাকেন, নির্বাচকেরা নিশ্চয়ই দল ঘোষণার এক-দুই দিন আগে দল নিয়ে তাঁর ভাবনা জানতে তাঁর সঙ্গে কথা বলেছেন, তাঁর মতামত-পরামর্শ নিয়েছেন।’

default-image

কোচ প্রথাগতভাবেই নির্বাচক কমিটির অংশ, আনুষ্ঠানিকভাবে তিনি নির্বাচক কমিটিতে থাকুন বা না থাকুন। কোচের সঙ্গে কথা না বলে নির্বাচকদের দল ঘোষণা আধুনিক ক্রিকেটে অভাবনীয়।

শেবাগও সেদিকে ইঙ্গিত করে বলছেন, ‘রবি শাস্ত্রীর বিবৃতির সঙ্গে আমি একমত নই, যেখানে তিনি বলেছেন তিনি নির্বাচক কমিটির অংশ নন। আনুষ্ঠানিকভাবে না হোক, অনানুষ্ঠানিকভাবে হলেও কোচ ও অধিনায়ক নিশ্চয়ই অস্ট্রেলিয়া সফরের দলে কাদের থাকা উচিত সেটি নিয়ে নির্বাচকদের সঙ্গে কথা বলেছেন।’

শেবাগের মতে, ফিট না হলেও চোটের ধরন বিবেচনায় রোহিতকে দলে রাখা উচিত ছিল বিসিসিআইয়ের। অস্ট্রেলিয়া সফরের সময় ঘনিয়ে আসার সময়ও রোহিত পুরোপুরি সুস্থ না হলে তখন না হয় তাঁর বিকল্প ডেকে নিত!

‘একজন খেলোয়াড় যে কিনা তার ফ্র্যাঞ্চাইজির জন্য খেলতে প্রস্তুত তাকে জাতীয় দলে নেওয়া হয়নি দেখে বিস্মিত হয়েছি। বিসিসিআইয়ের দিক থেকে এটা ব্যবস্থাপনার ভুল। তাদের সব তথ্য বিবেচনা করা উচিত ছিল। সে আইপিএলে নিজের দলে খেলতে পারবে কি না সেটা জানা উচিত ছিল, পারলে সে ক্ষেত্রে ভারতীয় দলেও রাখা উচিত ছিল। ও চোটে পড়লে তখন ওর বদলে কাউকে ডাকা যেত’—শেবাগের বিশ্লেষণ।

রোহিতের এখন নিজেকে ফিট দাবি করার প্রসঙ্গ টেনে শেবাগের কথা, ‘তাকে ভারতীয় দলের বাইরে রাখার ব্যাপারটাই বুঝতে পারছি না। এখন কী করবে তাঁরা (বিসিসিআই)? সে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিপক্ষে ম্যাচটা খেলেছে। প্লে-অফ ম্যাচগুলোতে খেলবে। নিজেই বলছে সে ফিট। তাহলে আপনারা ওকে দলে ডাকেননি কেন?’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0