বাজে শট খেলে আউট হয়েছেন লিটন।
বাজে শট খেলে আউট হয়েছেন লিটন। ছবি: শামসুল হক

চট্টগ্রাম টেস্টে আজ চতুর্থ দিনে ৮ উইকেটে ২২৩ রানে দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ। এতে জয়ের জন্য ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৩৯৫ রানের লক্ষ্য দিল মুমিনুল হকের দল। প্রথম ইনিংসে ৪৩০ রানে অলআউট হয় বাংলাদেশ। ওয়েস্ট ইন্ডিজ তাদের প্রথম ইনিংসে ২৫৯ রানে অলআউট হয়।

৩ উইকেটে ৪৭ রান নিয়ে কাল তৃতীয় দিনের খেলা শেষ করেছিল বাংলাদেশ। আজ প্রথম সেশনে ২৯ ওভারে মুশফিকের (১৮) উইকেট হারিয়ে ১০২ রান তোলে মুমিনুল হকের দল। সেঞ্চুরি তুলে নেন মুমিনুল হক (১১৫)। ৬৯ রানে আউট হন লিটন দাস।

দলীয় ২০৬ রানে লিটন আউট হন লিটন। ১৭ রানের মধ্যে ৪ উইকেট হারিয়ে অলআউট হওয়ার শঙ্কা পেয়ে বসেছিল বাংলাদেশকে। এর মধ্যেই দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করেন অধিনায়ক মুমিনুল। ৩টি করে উইকেট নেন রাকিম কর্নওয়াল ও জোমেল ওয়ারিক্যান।

৩৯৫ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমে বিনা উইকেটে ১৮ রান তুলে চতুর্থ দিনে চা বিরতিতে গেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। আজ আর এক সেশনের খেলা বাকি।

বিজ্ঞাপন

লিটনের আউটটি থেকে মড়ক লাগে বাংলাদেশের ইনিংসে। এমন শট সাধারণ টি–টোয়েন্টি ক্রিকেটে বেশি দেখা যায়। ওয়ানডে ক্রিকেটেও খেলে থাকেন ব্যাটসম্যানরা। কিন্তু টেস্টে, তা–ও আবার যখন কোনো চাপ নেই, এমন পরিস্থিতিতে সেঞ্চুরির সুবাস পেতে পেতে রিভার্স সুইপ!

লিটন দাস যেন মনে করিয়ে দিলেন জীবনান্দ দাশের কবিতার লাইন ‘যখন গিয়েছে ডুবে পঞ্চমীর চাঁদ, মরিবার হ’লো তার সাধ...।’

‘যখন গিয়েছে ডুবে পঞ্চমীর চাঁদ’—পংক্তিটির জায়গায় ‘যখন গিয়েছে ডুবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের জয়ের সাধ’—ব্যবহার করা যায়। কেননা, লিড এর মধ্যেই সাড়ে তিন শ পার হয়ে গেছে।

default-image

জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে চতুর্থ ইনিংসে সর্বোচ্চ ৩১৭ রানের লক্ষ্য টপকে জয়ের নজির আছে। অর্থাৎ, ওয়েস্ট ইন্ডিজকে জিততে হলে রীতিমতো রেকর্ড গড়তে হবে। এমন পরিস্থিতিতে লিটন কি না ‘আত্মহত্যা’ করে বসলেন!

আত্মহত্যা নয় তো আর কী? জোমেল ওয়ারিক্যানের আগের বলে রিভার্স সুইপ করে চার পেয়েছিলেন। লোভটা লিটন সংবরণ করতে পারেননি। পরের বলে আবারও রিভার্স সুইপে চার বের করতে গিয়ে ক্যাচ দেন পয়েন্টে।

১১২ বলে তাঁর ৬৯ রানের ইনিংসটির কী নিদারুণ অপমৃত্যু! সেঞ্চুরি তুলে নেওয়া মুমিনুল হক ফিরে যান পরের ওভারেই। শ্যানন গ্যাব্রিয়েলের বলে কেমার রোচকে ক্যাচ দেন তিনি। ১৮২ বলে ১০ চারে মুমিনুলের ১১৫ রানের ইনিংসটি বাংলাদেশের দ্বিতীয় ইনিংসের ‘নিউক্লিয়াস’।

default-image

চট্টগ্রাম টেস্টে আজ চতুর্থ দিনের দ্বিতীয় সেশনে এ সংস্করণে নিজের ১০ম সেঞ্চুরি তুলে নেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। বাংলাদেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি টেস্ট সেঞ্চুরি এখন মুমিনুলের। তামিম ইকবালকে (৯) টপকে যান তিনি।

উইকেটে এখন মেহেদী হাসান মিরাজের সঙ্গে রয়েছেন তাইজুল ইসলাম। চোটের কারণে ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রথম ইনিংসে বল না করা সাকিব আল হাসান এখনো ব্যাটিংয়ে নামেননি। মিরাজ (৭) ও তাইজুলকে তুলে নেন ওয়ারিক্যান।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন