ইংল্যান্ড নারী ক্রিকেট দলের সাবেক উইকেটকিপার সারা টেলর
ইংল্যান্ড নারী ক্রিকেট দলের সাবেক উইকেটকিপার সারা টেলরছবি: টুইটার

ছেলেদের শীর্ষ পর্যায়ের খেলায় নারী কোচ নতুন কিছু নয়। ব্রিটিশ টেনিস তারকা অ্যান্ডি মারেকে কোচিং করিয়েছেন ফ্রান্সের সাবেক নাম্বার ওয়ান অ্যামেলি মরেসমো। ইংল্যান্ডের কাউন্টি ক্রিকেটও এমন কিছু দেখতে যাচ্ছে আগামী মৌসুম থেকে।

ছেলেদের কাউন্টি দল সাসেক্সের কোচিং স্টাফে যোগ দিয়েছেন ইংল্যান্ড নারী দলের সাবেক উইকেটকিপার সারা টেলর। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে,এই প্রথম কোনো কাউন্টি দল তাদের কোচিং দলে কোনো নারীকে কোচ হিসেবে নিয়োগ দিল। উইকেটকিপিং কোচ হিসেবে সাসেক্সে যোগ দিয়েছেন টেলর।

স্বাস্থ্যগত কারণে ২০১৯ সালে মাত্র ৩০ বছর বয়সে অবসর নেন টেলর। দীর্ঘদিন অনিশ্চয়তা ও দুশ্চিন্তাসংক্রান্ত মনোরোগে ভুগছিলেন তিনি। তবে নিজের সময়ে তিনি ছিলেন খেলাটির অন্যতম সেরা উইকেটকিপারদের একজন।

বিজ্ঞাপন

সাসেক্সে নতুন নিয়োগ পাওয়া প্রধান কোচ ইয়ান সলসবুরি ও জেমস কির্টলের সঙ্গে খণ্ডকালীন কাজ করবেন টেলর। ইংল্যান্ড নারী দলের হয়ে ২২৬ ম্যাচে ২৩২ ডিসমিসাল করা সাবেক এ ক্রিকেটার ছয় হাজারের বেশি আন্তর্জাতিক রান করেছেন।

বিবিসিকে টেলর বলেন, ‘ছেলেদের ক্রিকেটেও নারীদের যে জায়গা প্রাপ্য, আশা করি লোকে এখন তা দেখবে। (সাসেক্সের) দরজা দিয়ে ঢোকার পর তারা কিন্তু আমাকে নারী হিসেবে গ্রহণ করেনি। কী কাজ আমার সেখানে, সেটা তারা জানে। নিজের সীমানা ডিঙিয়ে যাওয়ার চেষ্টাটা আমার সব সময়ই ছিল। আমি হয়তো প্রথম কিন্তু অবশ্যই শেষ হব না।’

ইংল্যান্ড নারী দলের ২০০৯ ও ২০১৭ ওয়ানডে বিশ্বকাপ জয়ে অবদান রাখা টেলর জিতেছেন টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপও। এ ছাড়াও মেয়েদের পাঁচটি অ্যাশেজ সিরিজে অংশ নিয়ে তিনবার সিরিজজয়ী দলের সদস্য ছিলেন টেলর।

অবসর নেওয়ার পর ইংল্যান্ডের এক স্কুলের জীবন ও ক্রীড়া কোচের দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। কিছুদিন আগে তিনি সংবাদমাধ্যমকে বলেছিলেন, অবসর ভেঙে ফিরেও আসতে পারেন। টেলর সর্বশেষ ব্যাট হাতে তুলে নিয়েছিলেন ২০১৯ সালের আগস্টে।

সাসেক্সের যুগ্ম প্রধান কোচ কির্টলে বলেন, ‘আমাদের উইকেটকিপারদের অনেক কিছু শেখানোর আছে টেলরের। কিপিংয়ে তার দক্ষতা দুর্দান্ত। তবে ম্যাচের নানা পরিস্থিতি বুঝেও সে অনেক কিছুই শেখাতে পারে খেলোয়াড়দের। বোঝাপড়ায় সে চমৎকার।’

কাল টেলরকে কোচিং স্টাফে নিয়োগ দেয় ইংল্যান্ডের প্রথম শ্রেণির মর্যাদাভুক্ত কাউন্টি ক্লাবগুলোর মধ্যে সবচেয়ে পুরোনো ও ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটি।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন