মিঠুনের ব্যাটে লড়াই করার মতো সংগ্রহ বাংলাদেশের।
মিঠুনের ব্যাটে লড়াই করার মতো সংগ্রহ বাংলাদেশের।ছবি: এএফপি

ডানেডিনে ব্যাটসম্যানদের হতশ্রী দশা চোখে পড়েছিল বেশ বাজেভাবে। ট্রেন্ট বোল্ট, জিমি নিশাম আর মিচেল স্যান্টনারদের তোপে ১৩১ রানেই আটকে গিয়েছিল বাংলাদেশ। যেখানে স্কোরবোর্ডেই রান নেই, বোলাররা ম্যাচ জেতাবেন কী করে? প্রথম ম্যাচ শেষে তাই এই আক্ষেপই ঝরে পড়েছিল বোলিং কোচ ওটিস গিবসনের কণ্ঠ থেকে, ‘আমার কাছে মনে হয় ব্যাটসম্যানরা যদি স্কোরবোর্ডে ২৬০-২৭০ রান দিতে পারে, তাহলে ভালো করার মতো মোটামুটি ভালো বোলিং আক্রমণ আমাদের আছে। আগে আমাদের ২৬০-২৭০ রান করতে হবে।’

তামিমরা হয়তো কোচের এই আক্ষেপের কথা অনুধাবন করেছেন আজ। আজ তাই তাঁদের ব্যাটে দেখা গেল বাড়তি প্রত্যয়। বাড়তি কিছু করে দেখানোর ইচ্ছা। ক্রাইস্টচার্চে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে প্রথম ইনিংসে ব্যাটসম্যানদের কাজ থেকে গিবসনের মুখের হাসিটা চওড়া হয়েছে কি না, কে জানে। আজ ব্যাটসম্যানরা অন্তত সেই হতাশা উপহার দেননি। আগের ম্যাচের চেয়ে ব্যাটিং হয়েছে যথেষ্ট ভালো। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ৫০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ২৭১ রান তুলেছে বাংলাদেশ। ব্যাট হাতে আলো ছড়িয়েছেন তামিম ইকবাল ও মোহাম্মদ মিঠুন।

বিজ্ঞাপন

বাকি কাজটা এখন বোলারদের। গিবসনের ‘চাহিদা’ মতো ২৭০ ছাড়ানো স্কোর ঠিকই তুলেছে ব্যাটসম্যানরা। এখন বোলাররা কি পারবেন কিউই ব্যাটসম্যানদের কাছে এই স্কোরকে অনতিক্রমণীয় হিসেবে প্রমাণ করতে? প্রশ্নের উত্তর লুকিয়ে আছে মোস্তাফিজ, তাসকিন, মিরাজ, শেখ মেহেদী ও সাইফউদ্দিনের হাতে।

আপনার কি মনে হয় বোলাররা আজ তাঁদের কাজ ঠিকঠাক করতে পারবেন?

মন্তব্য করুন