বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

সংযুক্ত আরব আমিরাতে হওয়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপই ছিল ভারতের কোচ হিসেবে রবি শাস্ত্রীর শেষ টুর্নামেন্ট। এ বিশ্বকাপের পর টি-টোয়েন্টির নেতৃত্ব ছাড়ার ঘোষণা দিয়ে রেখেছিলেন বিরাট কোহলিও। ভারতের জাতীয় দলকে পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণ করছিল এই শাস্ত্রী–কোহলি জুটি।

শাস্ত্রী আর কোহলিকে বাগে রাখতেই ধোনিকে মেন্টর হিসেবে টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাঠানো হয়েছিল, ভারতের সংবাদমাধ্যম সিএনএন–নিউজ এইটিনের সঙ্গে কথোপকথনে এমনটাই দাবি করেছেন অতুল ওয়াসান, ‘আমি আপনাদের বলছি, ধোনিকে কিছুটা ভারসাম্য আনার জন্য নেওয়া হয়েছিল। কারণ, সবাই মনে করছিল, দলটাকে পুরোপুরি বিরাট ও রবি শাস্ত্রী নিয়ন্ত্রণ করছে। সবার ধারণা ছিল, তারা যে খেলোয়াড়কে খেলাতে চায়, তাদেরই নির্বাচন করে আর নিজেদের ইচ্ছেমতো দল চালায়।’

default-image

অতুল ওয়াসান এখানেই থামেন না। তিনি আরও বলেন, বিশ্বকাপে ভারত দলের এভাবে হোঁচট খাওয়ার একটা কারণ এটাই, ‘এটা ঠিক যে তারা (কোহলি ও শাস্ত্রী) ভারতের ক্রিকেটকে নিয়ন্ত্রণ করছিল। এ কারণেই বিসিসিআই ভাবল নামডাকওয়ালা কাউকে এনে ভারসাম্য আনতে হবে। সে কিছু বিষয় দেখভাল করবে। আমার মনে হয়, তারা বিশ্বকাপে পুরো বিষয়টি গুলিয়ে ফেলেছে।’

সাদা বলের ক্রিকেটে কোহলিকে নেতৃত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়ার পক্ষেই কথা বলেছেন অতুল ওয়াসান, ‘ভারতে একবার আপনি অনেক বেশি ক্রিকেট খেলে ফেললে অবতার হয়ে যান। খেলোয়াড়েরা বাড়তি অর্থ চাইবে, বাড়তি মনোযোগ চাইবে। এর একটা পরিবর্তন দরকার।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন