default-image

ব্যাটসম্যান বীরেন্দর শেবাগের জাতটা সবার জানা। ভয়ডরহীন ব্যাট করতেন। পেসার ঘণ্টায় ১৫০ কিলোমিটার বেগে বল করলেও ফুরফুরে মেজাজে গান গাইতে গাইতে সীমানাছাড়া করতেন। সেই শেবাগই মনে করেন, ক্যারিবিয়ান ওপেনার ক্রিস গেইল হয়তো ব্যাটিংয়ের সময় তাঁর মতোই গান গাইতে পছন্দ করবেন। না হলে এত শান্ত থেকে বিশাল বিশাল ছক্কা মারা যায় নাকি!

ক্রিকবাজের ক্রিকেট বিশ্লেষণ অনুষ্ঠানে এক ভক্তের প্রশ্নের উত্তরে সম্ভাব্য গায়ক-ব্যাটসম্যানদের মধ্যে গেইলের নাম নিয়েছেন শেবাগ। এবারের আইপিএলে গেইলের ব্যাটিং মুগ্ধ করেছে শেবাগকে। ক্যারিবীয় ওপেনার এবার ৭ ম্যাচ খেলে তিনটি ফিফটিতে করেছেন ২৮৮ রান। কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবকে টুর্নামেন্টে শেষ পর্যন্ত টিকিয়ে রাখতে গেইলের অবদান ছিল বলার মতো।

বিজ্ঞাপন

ব্যাটিংয়ের সময় গান গাওয়ার গল্প বলতে বলতে নিজের অভিজ্ঞতাও ভাগাভাগি করেন সাবেক ভারতীয় ওপেনার শেবাগ। একবার নাকি পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচের সময় পাকিস্তানি ফিল্ডারদের অনুরোধে গান গেয়ে শুনিয়েছেন তিনি।

শেবাগ বলছিলেন, ‘আমি যখন খেলার মধ্যে থাকতাম, তখন কেউই বুঝত না যে আমি গান গাইছি। কিন্তু একবার প্রতিপক্ষ বুঝতে পেরেছিল গান গাইছি। আমি তখন ১৫০ রানের আশেপাশে ব্যাট করছিলাম। ম্যাচটা ছিল বেঙ্গালুরুতে পাকিস্তানের বিপক্ষে।

ইয়াসির হামিদ শর্ট লেগে ফিল্ডিং করছিল। সেখান থেকে সে আমাকে জিজ্ঞেস করে, ‘‘বিরু ভাই, আপনি তো ব্যাটিংয়ের সময় গান গান।’’ আমি বললাম,‘হ্যাঁ, অবশ্যই।’ তারপর সে কিশোর কুমারের গান শোনানোর অনুরোধ করল।’

default-image

অপরাজিত ১৫০ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলে পাকিস্তানিদের ঘাম ছুটিয়ে দিচ্ছিলেন। শেবাগের কাছে অবশ্য সেটা বিনোদনের মতোই, ‘আমি পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের আমার ব্যাটিং দিয়ে বিনোদন দিচ্ছিলাম। সঙ্গে আমার গান দিয়েও বিনোদিত করেছিলাম।’

১০৪ টেস্ট খেলেছেন শেবাগ। টেস্টে ৪৯.৩ গড়ে রান করেছেন ৮ হাজার ৫৮৬। ২০১১ বিশ্বকাপজয়ী শেবাগ ২৫১ ওয়ানডে ম্যাচে ৮ হাজার ২৭৩ রানের সংগ্রাহক দিল্লির এই ব্যাটসম্যান। কদিন আগে ইংলিশ তারকা ক্রিকেটার কেভিড পিটারসনও শেবাগের গান গেয়ে ব্যাটিংয়ের গল্প বলছিলেন। দিল্লির হয়ে আইপিএল খেলে এসে শেবাগের সঙ্গে ব্যাটিং করার অভিজ্ঞতা হয় পিটারসনের। তিনি ব্যাটিংয়ের সময় শেবাগকে গান গাইতে দেখে ভীষণ অবাক হন, ‘শেবাগের সঙ্গে ব্যাটিংয়ের কথা মনে আছে। আমার চোখ খুলে দিয়েছে সে। লোকটা গান গেয়ে ব্যাট করত। বোলাররা দৌড়ে এসে বল করছে আর সে গান গেয়ে গেয়ে চার-ছক্কা মারছে। ক্রিকেট মাঠে বেশ কিছু মজার মুহূর্ত আছে তাঁর সঙ্গে।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0