আইপিএল সামনে রেখে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর অনুশীলনে অধিনায়ক বিরাট কোহলি।
আইপিএল সামনে রেখে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর অনুশীলনে অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ছবি: টুইটার

বিরাট কোহলির প্রশংসা করতে গেলে কার্পণ্য করেন না শোয়েব আখতার। পাকিস্তানের সাবেক এ পেসার বরাবরই ভারতীয় অধিনায়কের গুন মুগ্ধ। কোহলির রূপান্তরটা বাকিদের মতো শোয়েবও চোখের সামনেই দেখেছেন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ভারতীয় অধিনায়কের শুরুর দিনগুলোর সঙ্গে নিজের মিল খুঁজে পান শোয়েব। পাকিস্তানের সাবেক এ গতি তারকা মনে করেন, ক্যারিয়ারের শুরুতে কোহলি তাঁর মতোই ‘দুষ্ট ছেলে’ ছিলেন।

সাম্প্রতিক সময়ে বেশ সমালোচিত হচ্ছেন শোয়েব। ধারাবাহিকভাবে ভারতের প্রশংসার পাশাপাশি তিনি পাকিস্তান ক্রিকেটের মুণ্ডুপাত করছেন।
বিজ্ঞাপন

‘দুষ্ট ছেলে’—বলতে শোয়েব বুঝিয়েছেন সেই সব বাচ্চাদের যাঁরা একটু উদ্ধত থাকে, কড়া মেজাজের। তবে কোহলি সেখান থেকে যে রূপান্তর ঘটিয়েছেন নিজের টিম ম্যানেজমেন্টের সাহায্য নিয়ে—অবশ্যই তা প্রশংসার দাবিদার বলে মনে করেন শোয়েব। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দ্রুততম ডেলিভারির রেকর্ড গড়া সাবেক এ পেসার কোহলিকে নিয়ে কথা বলেছেন ইউটিউবে একটি ক্রিকেট শো-তে। ‘বিরাট কোহলি নিজেকে অনন্য এক উচ্চতায় তুলেছে। কিন্তু কোহলির এই ব্র্যান্ডের পেছনে কে? ২০১০, ২০১১ সালে কোহলি কিন্তু আলোচনায় ছিল না। আমার মতোই দুষ্ট ছেলে ছিল। হঠাৎ করেই (ভারতীয় ক্রিকেটের) প্রক্রিয়া তাকে সহায়তা করতে শুরু করল। ম্যানেজমেন্টও পাশে ছিল। আর কোহলি নিজেও জানত, সামনে অনেক কিছু অর্জনের সুযোগ।’

বিজ্ঞাপন

ভারতের বর্তমান অধিনায়ক বর্তমান বিশ্বের সেরা ব্যাটসম্যানদের একজন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রান ও সেঞ্চুরির মালিক শচীন টেন্ডুলকারের রেকর্ড কেউ ভাঙতে পারলে কোহলি-ই পারবেন বলে মনে করা হয়। ২০০৮ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষিক্ত কোহলি ৩১ বছর বয়সেই নিজেকে তুলেছেন কিংবদন্তিদের কাতারে। মাঝে-মধ্যেই তুলনাটা ওঠে—কে বেশি ভালো, টেন্ডুলকার না কোহলি? শোয়েবকেও এ প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয়েছে। তাঁর মতে, টেন্ডুলকার যে সময়ে খেলেছেন সে তুলনায় ক্রিকেট খেলাটা এখন সহজ। অর্থাৎ কোহলির চেয়ে কঠিন সময়ে খেলেছেন টেন্ডুলকার। তবে তাতে কোহলির সব অর্জন এতটুকু খাটো হয় না বলেও মনে করেন ৪৫ বছর বয়সী শোয়েব।

default-image
বিজ্ঞাপন

তাঁর ভাষায়, ‘সে এখন সহজ ক্রিকেটের সময়ে খেলছে—এতে তার কোনো হাত নেই। কিংবা শচীন, ওয়াসিম, ইনজামাম, ওয়াকাররা যে কঠিন সময়ে খেলেছে সেখানেও কারও হাত নেই। তাই এখন সে (কোহলি) যদি রান করে চলে তাতে কার কী বলার আছে।’

সাম্প্রতিক সময়ে বেশ সমালোচিত হচ্ছেন শোয়েব। ধারাবাহিকভাবে ভারতের প্রশংসার পাশাপাশি তিনি পাকিস্তান ক্রিকেটের মুণ্ডুপাত করছেন। তবে শোয়েবের মতে, ‘আমি ভারতের সমালোচনাও করি। কিন্তু বিরাট কোহলি যদি ১২ হাজার রান করে, ওয়ানডেতে রোহিত শর্মার দুটি দ্বিশতক থাকে—তাহলে আর কী বলার থাকে! প্রতিপক্ষের শক্তি আমাদের জানা উচিত। কোহলি অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান, এটা না স্বীকার না করে কি তবে বলা উচিত, সে মানুষ হিসেবে ভালো না কিংবা ভালো খেলোয়াড় নয়।’

মন্তব্য পড়ুন 0