বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আজ সেটা পেলেন রিজওয়ান। টসে জিতে ব্যাটিং করার চ্যালেঞ্জটা নিয়েছিলেন বাবর। রিজওয়ান অবশ্য শুরুতে ধুঁকছিলেন। প্রথম ২৫ বলে করেছেন মাত্র ১৬ রান। রিজওয়ানকে সে চাপ থেকে মুক্ত করার চেষ্টা করেছিলেন বাবর।

তবে শুরুতে ধীরগতিরই ছিল পাকিস্তানের রান তোলার গতি। অবশ্য বাবরের সঙ্গে ঠিকই টি-টোয়েন্টিতে সবচেয়ে বেশি ৫ বার সেঞ্চুরি জুটির রেকর্ডটা নিজেদের করে নিয়েছেন রিজওয়ান।

ইনিংসের দ্বিতীয় ভাগে নামিবিয়ার ওপর চড়াও হলো পাকিস্তান। বাবর ফিরলেও থাকলেন রিজওয়ান। হাফিজের সঙ্গে মিলে তুললেন ঝড়। পরের ১০ ওভারে পাকিস্তান তুলল ১৩০ রান, রিজওয়ান পরের ২৫ বলে করলেন ৬৩ রান!

শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকলেন ৫০ বলে ৭৯ রান করে। টি-টোয়েন্টিতে এ বছর ১৮ বার ইনিংস ওপেন করে আটবারই অপরাজিত থাকলেন তিনি। এক পঞ্জিকাবর্ষে স্বীকৃত টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশি রানের রেকর্ডে বিরাট কোহলিকে ছাড়িয়ে গেছেন আগেই, আর ৫ রান করলেই এই রেকর্ডের শীর্ষে থাকা ক্রিস গেইলকেও ছাড়িয়ে যাবেন তিনি।

ম্যাচ শেষে আজ রেজওয়ান নিজের ইনিংস নিয়ে বলেছেন, ‘আমরা ইনিংসের শুরুতে দ্রুত রান তুলতে পারিনি। নামিবিয়ার বোলাররা শুরুতে ভালো বোলিং করেছে। ওদের কৃতিত্ব দিতেই হয়। তখন আমাদের পরিকল্পনা ছিল ম্যাচটা যতটা গভীরে নিয়ে যাওয়া যায়। আমরা সেটাই করেছি। শেষের দিকে দ্রুত রান তুলেছি। বলা যায়, আমরা সব বক্সেই টিক চিহ্ন পেয়েছি।’

সময়টা তো রিজওয়ানেরই এখন!

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন