default-image
>বর্ণবাদী মন্তব্য করে নিষিদ্ধ সরফরাজ আহমেদকে দেশে ফেরানোর সমালোচনা করলেন ওয়াসিম আকরাম

বর্ণবাদী মন্তব্য করে চার ম্যাচ নিষিদ্ধ হয়েছেন সরফরাজ আহমেদ। দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে পাকিস্তান অধিনায়ককে দেশেও ফিরিয়ে এনেছে পিসিবি। কিন্তু সরফরাজকে নিয়ে আলোচনা থামছেই না। এবার মুখ খুললেন পাকিস্তানের কিংবদন্তি পেসার ওয়াসিম আকরাম। তাঁর মতে, সরফরাজকে দেশে ফিরিয়ে আনা উচিত হয়নি। সরফরাজ ভুল করেছে, তবে তাঁর এই ভুল নিয়ে সারা বিশ্বজুড়ে অন্যান্যদের তুলনায় পাকিস্তানিরাই বেশি মেতেছে।

পাকিস্তান দল এখন দক্ষিণ আফ্রিকা সফর করছে। চলতি ওয়ানডে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে প্রোটিয়া ক্রিকেটার আন্দিলে ফিউলেঙ্কোর প্রতি বর্ণবাদী মন্তব্য করেন সরফরাজ। এতে সমালোচনার ঝড় ওঠে ও আইসিসি তাঁকে চার ম্যাচ নিষিদ্ধ করে। পাঁচ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের বাকি দুই ম্যাচ এবং টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচ খেলতে পারবেন না সরফরাজ। পিসিবি তাঁকে দেশে ফিরিয়ে আনে এবং দলের নেতৃত্বভার অর্পণ করা হয়েছে শোয়েব মালিকের কাঁধে। তবে টি-টোয়েন্টি সিরিজের শেষ ম্যাচটা খেলতে পারতেন সরফরাজ।

ওয়াসিমের আপত্তিটা ঠিক এখানেই। পাকিস্তানের সাবেক এই অধিনায়ক বলেন, ‘দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে তাঁকে দেশে ফেরানোর সিদ্ধান্তটি ভুল। সে ৬ ফেব্রুয়ারি শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচটি খেলতে পারত।’ তবে বাঁ হাতি এই পেস কিংবদন্তি মনে করেন, সরফরাজ মন্তব্যটি না করলেও পারতেন। যদিও তাঁর ওই মন্তব্য নিয়ে পাকিস্তানিরাই বেশি মেতেছে, ‘সরফরাজ ভুল করেছে, কিন্তু এই ভুল নিয়ে বিশ্ব জুড়ে অন্যান্যদের তুলনায় পাকিস্তানিরাই বেশি মেতেছে এবং তাতে বিষয়টি সমস্যায় পরিণত হয়।’

সরফরাজকে নেতৃত্ব থেকে সরানোর সমালোচনাও করেছেন ওয়াসিম। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) ক্রিকেট কমিটির এই সদস্য বলেন, ‘বিশ্বকাপের আগে নেতৃত্বভার পাল্টানোর দরকার নেই। আমাদের দীর্ঘমেয়াদি অধিনায়ক দরকার। শোয়েব মালিক ভালো করছে তবে সে আগেই বলেছে, বিশ্বকাপের পরই ওয়ানডে ছেড়ে দেবে। তাই তাঁকে (সরফরাজ) নেতৃত্ব থেকে সরালে সেটি হবে ভুল সিদ্ধান্ত।’

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন