বাংলাদেশ টেস্ট দলের অধিনায়ক মুমিনুল হক।
বাংলাদেশ টেস্ট দলের অধিনায়ক মুমিনুল হক।ছবি: প্রথম আলো

যেকোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচের আগে-পরে নিয়ম করে সংবাদ সম্মেলনের প্রথাটায় বদল এনেছে করোনাভাইরাস। সংবাদকর্মীতে ঠাসা, সারি সারি টিভি ক্যামেরা দাঁড় করানো কক্ষের সংবাদ সম্মেলন এখন চলে গেছে অনলাইনে। ভার্চ্যুয়ালি সংবাদ সম্মেলন করতে করতে কিছুটা কি ক্লান্ত ক্রিকেটাররা। বাংলাদেশ অধিনায়ক মুমিনুল হক যেমন আজ জানালেন, তিনি করোনাকালের আগের সময়ের সংবাদ সম্মেলনের ব্যাপার-স্যাপারগুলো বেশ মিস করেন।

কাল ক্যান্ডির পাল্লেকেলেতে শুরু হচ্ছে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম টেস্ট। প্রথাগতভাবেই ম্যাচের আগের দিন সংবাদ সম্মেলন করতে হলো মুমিনুলকে। তবে সেটি হলো অনলাইনেই। মুমিনুলের দিকে প্রশ্ন রাখা হয়েছিল, এমন একটা টেস্ট সিরিজে সংবাদকর্মীদের অনুপস্থিতি দলের ওপর চাপ কমিয়ে দিচ্ছে কি না? উত্তরে দারুণ সপ্রতিভ বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক, ‘না! আমি সব সময় সাংবাদিকদের মিস করি। আমি যখন থেকে বাংলাদেশ দলে খেলি, তখন থেকে সব সময় চেষ্টা করতাম যে আমি প্রতিদিনই সংবাদ সম্মেলনে যাব। এটা আমার সব সময় ভালো লাগে। সত্যি কথা বলতে, এভাবে এ রকম অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে আমার ওই অনুভূতিটা আসে না। সামনাসামনি থাকলে এ জিনিসটা আরও বেশি উপভোগ করি। তাই স্বস্তি বলব না, সাংবাদিকদের মিস করি।’

বিজ্ঞাপন
default-image

সাংবাদিকদের ‘মিস করেন’—কথাটা মজা করে হয়তো বলেছেন, কিন্তু তিনি বাংলাদেশ দলের টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে সাকিব আল হাসানকে যে বড্ড মিস করেন, সেটি সোজাসাপ্টাই জানিয়েছেন, ‘উনি বিশ্বের এক নম্বর অলরাউন্ডার। যেকোনো দলই তাকে মিস করবে। আমাদের জন্যও সমন্বয় গড়া কঠিন হয়ে যায় উনি না থাকলে। তবে এটা বাকিদের জন্য সুযোগ।’

টেস্ট অধিনায়ক হওয়ার পর থেকেই মুমিনুলের কপাল মন্দ। সাকিবকে তেমন একটা পান-ই-নি। ভারত,পাকিস্তানের বিপক্ষে তাদের মাটিতে টেস্ট, কিংবা ফেব্রুয়ারিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ঘরের মাঠে টেস্ট—মুমিনুল সাকিবকে পাননি। এক সাকিব না থাকলে দলের কম্বিনেশন নিয়ে যে সমস্যা, সেটি টিম ম্যানেজমেন্টের জন্য বিরাট মাথাব্যথা। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে মুমিনুল সাকিবকে আরও বেশি করে মিস করবেন, এটা বলাই যায়। এক বিদেশের মাটিতে টেস্ট, তার ওপর দলের আত্মবিশ্বাসে আছে বড় ঘাটতি। সাকিব থাকলে নিশ্চয়ই অনেক সমস্যারই সমাধান পেয়ে যেতেন মুমিনুল।

default-image

টেস্ট সিরিজের ভেন্যু পাল্লেকেল্লে আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামের উইকেটে ব্যাটসম্যান ও পেসারদের সুযোগটাই বেশি দেখছেন টেস্ট অধিনায়ক, ‘আমার মনে হয় পেসাররাই এই ম্যাচে বড় ভূমিকা রাখবে। আমাদের দলের ব্যাটিং আর পেস বোলিং বিভাগ খুব গুরুত্বপূর্ণ হবে।’

শ্রীলঙ্কায় বাংলাদেশ দলের পারফরম্যান্সের ওপর মাঠের বাইরের অনেক সিদ্ধান্ত নির্ভর করছে। ক্রিকেটারদের কেন্দ্রীয় চুক্তি ও কোচদের পারফরম্যান্সের মূল্যায়ন হবে এর ভিত্তিতেই। মুমিনুল অবশ্য মাঠের বাইরের এসব আলোচনায় মন দিতে চান না। তাঁর সব মনোযোগ এখন কাল শুরু হতে যাওয়া পাল্লেকেলে টেস্টে, ‘আমি শ্রীলঙ্কায় এসেছি, মাঠে নামব, বোলার বল করবে, আমি ব্যাটিং করব, আর আমার বোলাররা বল করবে, ওদের ব্যাটসম্যানরা ব্যাটিং করবে, আমাদের ফিল্ডাররা ফিল্ডিং করবে। আমরা আমাদের পরিকল্পনা অনুযায়ী খেলব। আমি আসলে এসব নিয়েই ভাবছি। আপনি যেগুলো বললেন এগুলো নিয়ে চিন্তিত না। একজন পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে আমার কাছে মনে হয় এসব নিয়ে এত ভাবার দরকার নেই।’

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন