default-image

কলকাতা সাকিবের পুরোনো ডেরা। ২০১১ থেকে ২০১৭ পর্যন্ত কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে আইপিএল দাপিয়েছেন। কলকাতার দুই শিরোপাতেই ছিল তাঁর অবদান। প্রায় চার বছর পর পুরোনো দল কলকাতায় ফিরেছেন সাকিব। গতকাল অনুষ্ঠিত নিলামে ৩ কোটি ২০ লাখ রুপিতে তাঁকে আবারও দলে ভেড়ায় কলকাতার ফ্র্যাঞ্চাইজিটি।

পুরোনো ঘরে ফিরতে পেরে বেজায় খুশি সাকিব। এক তাৎক্ষণিক ভিডিও বার্তায় তিনি কলকাতার হয়ে আবারও আইপিএল শিরোপা জয়ের আশার কথা জানিয়েছেন। ২০১২ ও ২০১৪ সালে কলকাতার দুটি আইপিএল শিরোপার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ ছিলেন বাংলাদেশের সেরা তারকা।

ঘরের ছেলে ঘরে ফিরছেন। সাকিব সেটি নিয়ে নিজের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন এভাবে, ‘দারুণ রোমাঞ্চিত আমি। আবারও কলকাতার হয়ে খেলতে পারব বলে। এর আগে ২০১২ ও ২০১৪ সালে আমরা যেভাবে খেলেছি, দুটি শিরোপা জিতেছি, এবারও তেমন কিছু করারই চেষ্টা করব।’

বিজ্ঞাপন

২০১৮ ও ২০১৯ মৌসুমে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে খেলেন সাকিব। এর মধ্যে ২০১৯ সালে তিনি মাত্র ৩টি ম্যাচ খেলার সুযোগ পেয়েছিলেন। এখন পর্যন্ত আইপিএলে দুটি ফ্র্যাঞ্চাইজির হয়ে ৬৩টি ম্যাচ খেলেছেন সাকিব। বল হাতে পেয়েছেন ৫৯ উইকেট। গড় ২৮। সেরা বোলিং তাঁর ৩/১৭। ব্যাটিংয়ে ৬৩ ম্যাচে তাঁর রান ৭৪৬। গড় ২১।

নিষেধাজ্ঞার কারণে সংযুক্ত আরব আমিরাতে অনুষ্ঠিত আইপিএলের ২০২০ সংস্করণ খেলতে পারেননি সাকিব। গত অক্টোবরে নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফিরেছেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে হয়েছেন ম্যান অব দ্য সিরিজ। প্রথম টেস্টের একাদশে থাকলেও চোটের কারণে তাঁকে পুরোপুরি পায়নি বাংলাদেশ। দ্বিতীয় টেস্টে দলেই ছিলেন না তিনি।

তৃতীয় সন্তানের জন্ম উপলক্ষে নিউজিল্যান্ড সফরে যাচ্ছেন না সাকিব। এবার শোনা যাচ্ছে, আইপিএল খেলতে আগামী এপ্রিলে দেশের মাঠে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২ টেস্টের সিরিজ থেকেও ছুটি নিয়েছেন তিনি।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন