default-image
সাকিব আল হাসানের লক্ষ্য ছিল আইপিএল দিয়ে বিশ্বকাপের প্রস্তুতিটা ভালোভাবে সেরে ফেলা। টানা ৮ ম্যাচে বসে থাকায় সে লক্ষ্য পূরণ হয়নি তাঁর। এটি নিয়ে অবশ্য চিন্তিত নন বাংলাদেশ কোচ


অপেক্ষার প্রহর শেষে সাকিব আল হাসানের সুযোগ মিলছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের একাদশে। গত ম্যাচ খেলেছেন। সব ঠিক থাকলে পরশু রাজস্থান রয়্যালসের বিপক্ষেও হয়তো খেলবেন। আয়ারল্যান্ড সফরের আগে এটাই হয়তো বাঁহাতি অলরাউন্ডারের শেষ ম্যাচ। চোটে পড়ায় নিউজিল্যান্ড সফর হাতছাড়া করা সাকিব আইপিএলে যে লক্ষ্যে গিয়েছিলেন, সেটি কি পূরণ হলো?

টানা আট ম্যাচ বসে থাকা সাকিব খেলতেই পেরেছেন দুটি ম্যাচ। খেলতে না পারায় বিশ্বকাপের প্রস্তুতিতে কি ঘাটতি থেকে গেল সাকিবের? বাংলাদেশ কোচ স্টিভ রোডস তা মনে করেন না, ‘সাকিব ওখানে আছে এই ভেবে, যদি দু-একটা ম্যাচ খেলতে পায়। সেদিন একটা ম্যাচে খেলেছে। আশা করছি দুই-তিনটা ম্যাচ পাবে। সে খেলতে না পারলে ঠিকমতো অনুশীলন হচ্ছে কি না, এই নিয়ে উদ্বিগ্ন ছিলাম। কিন্তু না সে সেখানে ভালোভাবেই অনুশীলন করতে পারছে । টিভিতে দেখলাম ওই ম্যাচে খুবই স্বচ্ছন্দ ছিল। দেখে ফিট মনে হয়েছে। আমি খুশি, আরও খুশি হব যদি সে আরও ম্যাচ খেলতে পারে।’

সাকিব যদি আইপিএলে ম্যাচ খেলতে পারতেন, সেটির চেয়ে আদর্শ প্রস্তুতি আর কিছু হতে পারত না। রোডস অবশ্য এটি নিয়ে চিন্তিত নন। বরং সাকিবের না খেলতে পারার মধ্যেও ইতিবাচক দিক খুঁজে পাচ্ছেন বাংলাদেশ কোচ, ‘এখানে দুটো ভালো দিক আছে (ম্যাচ খেলতে না পারা)। প্রথমত, খেলতে তার খিদেটা আরও বেড়েছে। আর সাকিব হায়দরাবাদের মতো দলে জায়গা পায়নি, এটা তাকে ২০১৯ বিশ্বকাপে দারুণ কিছু করতে, নিজের সামর্থ্য প্রমাণে আরও উৎসাহিত করবে। আমার মনে হয় এতে বাংলাদেশ উপকৃত হবে।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন