বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

কাল বোলিংয়ের সময়ই চোট পেয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। ব্যাটিংয়ের সময় প্রথম রান নেওয়ার শেষ দিকেই যেভাবে পা তুলে ফেলেছিলেন, তাতে বোঝা গিয়েছিল দৌড়ে আজ সাকিবের পক্ষে রান তোলা কঠিন। কাল ইউটিউব লাইভে একটি অনুষ্ঠানে এসেছিলেন ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ও সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি। সেখানে দল নির্বাচন, সংস্কৃতি, কোচদের সামর্থ্য নিয়ে অনেক সমস্যার কথাই আলোচনা হয়েছে।

তবে সাকিবের গতকাল ওপেন করার প্রসঙ্গে দুজনই ছিলেন একমত। গতকালের প্রেক্ষাপটে সাকিবের আগে ব্যাট করতে নামার পক্ষে তামিম, ‘আমার মনে হয়, ওর ওপেন করার কারণটা ওর চোট। আপনাদের মনে হতে পারে, চোট পেলে পরে নামলেই তো ভালো। কিন্তু, না। আমার তার সঙ্গে কথা হয়নি বা দলের কারও সঙ্গে কথা হয়নি। আমার মনে হচ্ছে, সে বুঝতে পেরেছিল, ও দৌড়াতে পারবে না। সে মাঝখানে নামলে ওকে অনেক দৌড়াতে হবে, জোরে সিঙ্গেলস নিতে হবে। ও সম্ভব চিন্তা করেছে, পাওয়ার প্লেতে যদি দুই-তিন-চারটা বাউন্ডারি মেরে দিতে পারে, দলের অবস্থান একটু ভালো হবে। ওই ঝুঁকিটা সে নিয়েছে।’

default-image

কাল ১২ বলের ইনিংসে একটি বলকেই সীমানাছাড়া করতে পেরেছেন সাকিব। ৯ রানের ইনিংসে দৌড়ে তাঁকে আরও পাঁচ রান নিতেও হয়েছে। তামিম মানছেন বুদ্ধিটা কাজ কাজে আসেনি। কিন্তু এ ছাড়া উপায় ছিল না, ‘ফল আসেনি হয়তো কিন্তু চোটই ওর ওপেন করার কারণ। টিম ম্যানেজমেন্টও হয়তো ভেবেছে, মাঝখানে একদম ব্যাটিং করতে না পারার চেয়ে শুরুতে কিছু বাউন্ডারি মারতে পারলে দল ভালো শুরু পেয়ে যাবে।’

default-image

মাশরাফিও অন্তত কাল এ সিদ্ধান্তে দলের কোনো ভুল দেখছেন না। তাঁর মতে, সাকিবের মতো ব্যাটসম্যানের কাছ থেকে সর্বোচ্চটুকু পাওয়ার চেষ্টা করতেই পারে দল, ‘সাকিবের মতো খেলোয়াড় ও তার অভিজ্ঞতা খুব গুরুত্বপূর্ণ। এমন এক খেলোয়াড়কে গুরুত্ব দেওয়াও দলের কাজ। বোঝাই যাচ্ছিল, সাকিব দৌড়াতে পারবে না।সাকিব প্রথম ছয় ওভারে যতটুকু ব্যাটিং করবে ওটাই লাভ। আমার মনে হয় না, দলের এতে কোনো ভুল আছে।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন