ওয়ানডে বোলারদের র‌্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষ পাঁচের মধ্যে উঠে এসেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ
ওয়ানডে বোলারদের র‌্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষ পাঁচের মধ্যে উঠে এসেছেন মেহেদী হাসান মিরাজছবি: প্রথম আলো

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে ভালো বোলিংয়ের পুরস্কার পেলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। আইসিসি বোলারদের ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিংয়ে বেশ বড় এক ‘লাফ’ই দিয়েছেন বাংলাদেশের এই অফ স্পিনার।

এক বছর নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরা সাকিব আল হাসানের উন্নতি হয়েছে দুই ধাপ।

ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে ৭ উইকেট তুলে নিয়েছেন মিরাজ। দ্বিতীয় ম্যাচে ছিল ক্যারিয়ার–সেরা বোলিং। ২৫ রানে নেন ৪ উইকেট। আজ সর্বশেষ হালনাগাদ করা ওয়ানডে বোলারদের র‌্যাঙ্কিংয়ে তার পুরস্কার পেলেন এই অফ স্পিনার।

৯ ধাপ এগিয়ে র‌্যাঙ্কিংয়ের ৪র্থ স্থানে উঠে এসেছেন তিনি। মিরাজের মোট রেটিং পয়েন্ট ৬৯৪। তাঁর ওয়ানডে ক্যারিয়ারে এটাই সর্বোচ্চ রেটিং পয়েন্ট।

বিজ্ঞাপন

র‌্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষে থাকা নিউজিল্যান্ড পেসার ট্রেন্ট বোল্টের রেটিং পয়েন্ট ৭২২, অর্থাৎ বোল্টের সঙ্গে ২৮ পয়েন্ট ব্যবধানে পিছিয়ে মিরাজ।

গত মাসের ওয়ানডে বোলারদের র‌্যাঙ্কিংয়েও শীর্ষ দশের বাইরে ছিলেন মিরাজ। ৬২৬ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে ছিলেন ১৩তম স্থানে। বোলারদের র‌্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষ দশে বাংলাদেশের দুজন ক্রিকেটার জায়গা করে নিয়েছেন।

default-image

র‌্যাঙ্কিংয়ে আটে উঠে এসেছেন পেসার মোস্তাফিজুর রহমান। তাঁর মোট রেটিং পয়েন্ট ৬৫৮। গত মাসেও র‌্যাঙ্কিংয়ে ১৯তম ছিলেন মোস্তাফিজ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে ৩ ম্যাচে ৬ উইকেট নিয়ে ১১ ধাপ উন্নতি ঘটিয়ে শীর্ষে দশে জায়গা করে নিলেন বাঁহাতি এ পেসার।

ডিসেম্বরেও ওয়ানডে বোলারদের র‌্যাঙ্কিয়ে ২৮তম স্থানে ছিলেন সাকিব। জুয়াড়ির প্রস্তাব গোপন করে এক বছর নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরেন বাংলাদেশের এ অলরাউন্ডার।

এই সিরিজে ৩ ম্যাচে ৬ উইকেট নিয়ে মোস্তাফিজের সঙ্গে যুগ্মভাবে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি হন সাকিব। সিরিজ–সেরাও হয়েছিলেন তিনি।

এমন পারফরম্যান্সের পুরস্কার হিসেবে ১৫ ধাপ উন্নতি ঘটেছে সাকিবের। ওয়ানডে বোলারদের র‌্যাঙ্কিংয়ে ১৩তম স্থানে উঠে এসেছেন অলরাউন্ডার। তাঁর রেটিং পয়েন্ট ৬২৯।

default-image

তবে ওয়ানডে বোলারদের র‌্যাঙ্কিংয়ে নিজের ক্যারিয়ার–সেরা রেটিং পয়েন্টের ধারেকাছেও আসতে পারেননি তিনি। ২০০৯ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের পর ৭১৭ রেটিং পেয়েছিলেন সাকিব।

ওয়ানডে বোলারদের র‌্যাঙ্কিংয়ে বোল্টের পর আফগান স্পিনার মুজিব–উর–রহমান। ৭০৮ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় তিনি। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে ভালো বল করেন তিনি। ৭০০ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে তিনে ভারতের পেসার যশপ্রীত বুমরা।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন