করোনার বিরতি কাটিয়ে প্রায় সাত মাস পর মিরপুরে ফিরেছে ক্রিকেট।
করোনার বিরতি কাটিয়ে প্রায় সাত মাস পর মিরপুরে ফিরেছে ক্রিকেট। ছবি: প্রথম আলো

রায়ান কুক একাদশের বোলিং আক্রমণটা সাজানো ছিল তাসকিন আহমেদ, আল আমিন হোসেন, খালেদ আহমেদ ও মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনদের নিয়ে। কিন্তু অধিনায়ক মুমিনুল হককে আজ সারা দিন উইকেটের জন্য বারবার ফিরতে হয়েছে তাসকিনের কাছে। তাসকিনও হতাশ করেননি। দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচের প্রথম দিন ওটিস গিবসন একাদশের বিপক্ষে দারুণ ছন্দে ছিলেন তাসকিন। গিবসন একাদশের দুই ব্যাটসম্যান সাইফ হাসান ও সৌম্য সরকার ফিফটি করেছেন।

বিজ্ঞাপন

তবে মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে ক্রিকেট ফেরাই ছিল আজকের মূল আকর্ষণ। হোক না নিজেদের মধ্যে ভাগাভাগি করে প্রস্তুতি ম্যাচ। দুই দলের ক্রিকেটারদের মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বী মনোভাবের কমতি ছিল না। দীর্ঘদিন দলের বাইরে থাকা পেসার তাসকিন যেমন সকাল থেকেই গতি, লাইন-লেংথ ও বাউন্সের মিশেলে কাঁপিয়েছেন প্রস্তুতি ম্যাচে প্রতিপক্ষ হয়ে যাওয়া তাঁর সতীর্থদের। ১৭ ওভার বল করে তাসকিনের শিকার ৪ উইকেট। দিনের শেষেরও তাসকিনের বোলিংয়ে গতির ঝলক ছিল স্পষ্ট।

করোনার বিরতিতে কঠোর পরিশ্রমের ফল যেন আজ দেখা মিলল। ওজন কমিয়ে ঝরঝরে হয়েছেন বেশ। কিন্তু গতি কমতে দেননি, বরং বাড়িয়েছেন। উইকেটে তেমন গতি ছিল না। কিন্তু তাসকিন গতির ঝড় তুলতে পেরেছেন ১৭ ওভার জুড়েই। দিনের শেষ স্পেলেও বল লাফিয়ে যাচ্ছিল উইকেটকিপার নুরুল হাসানের গ্লাভসে।

default-image

বাকি পেসারদের সঙ্গে তাসকিনের পার্থক্যটা ছিল এখানেই। খালেদ, আল আমিনদের লাইন-লেংথ ছিল বেশ এলোমেলো। দক্ষতায় মরচে পড়া ভাবটা স্পষ্ট। ব্যাটসম্যানদের রান করার সুযোগও ছিল বেশি। তবে সাইফউদ্দিন দিনের শেষে আবার ভালো বল করেছেন।

দুই দফা বৃষ্টির কারণে খেলা বন্ধ থাকায় পুরো ৯০ ওভারের খেলা হয়নি। ৬৩.৪ ওভারে খেলে তাসকিনদের বোলিংয়ে গিবসন একাদশ অলআউট হয় ২৩০ রানে। ওপেনার সাইফ হাসান বেশ কিছু চোখজুড়ানো শট খেলেছেন ইনিংসের শুরুতে। পেসারদের বোলিংয়ে ব্যাকফুট পাঞ্চ করে অফ সাইডে রান বের করেছেন। তবে আউট হন তাইজুলের স্পিনে এলবিডব্লিউ হয়ে।

বিজ্ঞাপন

তিনে নামা গিবসন দলের অধিনায়ক নাজমুল হোসেন ৪২ রান যোগ করেন। মিডল অর্ডারে মাহমুদউল্লাহকে বেশ সাবলীল লেগেছে। কিন্তু ৩৪ রানে আউট হন তিনিও। সৌম্য সহজাত আগ্রাসন দেখিয়েছে করেছেন ৫১ রান। সাইফউদ্দিনের বোলিংয়ে দুবার এলবিডব্লিউর আবেদন থেকে রক্ষা পেলেও শেষ পর্যন্ত সেই সাইফউদ্দিনের বলেই সহজ ক্যাচ তুলে আউট হন সৌম্য।

কাল ব্যাটিং করবে রায়ান কুক একাদশ। মোস্তাফিজুর রহমান, ইবাদত হোসেন, হাসান মাহমুদদের বোলিংয়ে মুমিনুল-মিঠুনরা কেমন করেন সেটাই দেখতে চাইবেন কোচরা।

মন্তব্য পড়ুন 0