২২ বার করোনা পরীক্ষা করিয়েছেন সৌরভ।
২২ বার করোনা পরীক্ষা করিয়েছেন সৌরভ। ছবি: সংগৃহীত

তাঁর কাজটাই এমন যে আজ এক দেশে তো কাল অন্য দেশে ঘুরে বেড়াতে হয়। এই করোনাভাইরাসের মধ্যেও ভারত-সংযুক্ত আরব আমিরাত করেছেন বারবার। অন্য দেশেও হয়তো যেতে হয়েছে বিভিন্ন কাজে। আর এত ভ্রমণ, মানে মিশেছেন কত মানুষের সঙ্গে! করোনা পরীক্ষা তাই করাতেই হতো সৌরভ গাঙ্গুলীকে। তাই বলে এতবার!

ভারতের কিংবদন্তি অধিনায়ক ও বর্তমানে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) সভাপতি নিজেই জানিয়েছেন, গত সাড়ে চার মাসে ২২ বার করোনা পরীক্ষা করিয়েছেন তিনি। সৌভাগ্যবশত একবারও পজিটিভ আসেনি টেস্টের ফল।

গত কয়েক মাসে সৌরভের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল আইপিএলের সফল আয়োজন নিশ্চিত করা। একদিকে করোনার প্রকোপ, এর মধ্যে বিভিন্ন দেশ থেকে তারকা খেলোয়াড়দের নিয়ে আসা, মাঠে ক্রিকেট ফেরানো, তারওপর করোনার কারণে কপালে চিন্তার ভাঁজ বাড়াতে থাকা আর্থিক ক্ষতি কিছুটা পুষিয়ে নেওয়া...সবকিছুই নিশ্চিত করতে হয়েছে বিসিসিআই সভাপতি সৌরভকে। কিন্তু সেটি করতে হতো আইপিএলে খেলতে আসা খেলোয়াড়, কোচ, আম্পায়ার ও অন্য সবার নিরাপত্তা নিশ্চিত করে। করোনা যাতে আইপিএলে হানা দিতে না পারে, সেদিকে দৃষ্টি রাখতে হয়েছে।

default-image
বিজ্ঞাপন

করোনার হানা থেকে বাঁচাতে এবার ভারত থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাতেই আইপিএল সরিয়ে নেওয়া হয়। বিসিসিআইয়ের জন্য সুখবর, আইপিএলে কেউ করোনা আক্রান্ত হননি। সৌরভও এখন পর্যন্ত করোনাকে এড়িয়ে চলতে সক্ষম হয়েছেন।

কিন্তু এত বড় এই আয়োজন তো আছেই, পাশাপাশি ভারতের অস্ট্রেলিয়া সফর ও বিসিসিআইয়ের প্রধান হিসেবে অন্য দায়িত্বের কারণে বারবার এ–দেশ ও–দেশ করতে হয়েছে গাঙ্গুলীকে। পাশাপাশি নিজের আশপাশের কেউ করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর এলেই নিজেও পরীক্ষা করানোর একটা দায়িত্ব তো থাকেই। বারবার সে কারণে করোনা পরীক্ষাও করাতে হয়েছে। সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে ভার্চ্যুয়াল সংবাদ সম্মেলনে সেটিই বলেছেন গাঙ্গুলী, ‘আপনাদের বলি, গত সাড়ে চার মাসে আমি ২২ বার করোনা পরীক্ষা করিয়েছি। একবারও পজিটিভ আসেনি। আমার চারপাশে অনেকে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, সে কারণে আমাকেও করোনা পরীক্ষা করাতে হয়েছে।’

এতবার করোনা পরীক্ষা করানোর পেছনে নিজের সুস্থতা সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়ার ব্যাপার তো ছিলই, আরেকটি বিষয়ও কাজ করেছে সৌরভের মনে। সেটি তাঁর বাড়ির বয়স্ক মানুষদের নিয়ে। ‘বাড়িতে বয়স্ক মানুষেরা আছেন। শুরুর দিকে যখন দুবাই গেলাম, শুরুর দিকে অনেক দুশ্চিন্তায় ছিলাম। শুধু আমার জন্য নয়, আমার আশপাশের মানুষের জন্যও। মানুষ যাঁকে অনুসরণ করে, এমন একজন হিসেবে আপনি নিশ্চয়ই চাইবেন না আপনার মাধ্যমে কারও শরীরে ভাইরাসটা ছড়াক’—সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন কিংবদন্তি ভারতীয় অধিনায়ক।

সৌরভ সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেছেন ভারতের অস্ট্রেলিয়া সফর নিয়েও। মঙ্গলবার সিডনিতে নিজেদের নির্ধারিত কোয়ারেন্টিনের সময় শেষ করেছে ভারতীয় দল। সিডনিতেই আগামী পরশু প্রথম ওয়ানডে দিয়ে শুরু হবে ভারতের সিরিজ। তার আগে ভারতীয় দলের একটা ‘আপডেট’ দিলেন সৌরভ, ‘খেলোয়াড়েরা ফিট আছে, ভালো আছে। অস্ট্রেলিয়ায় কোভিডে আক্রান্তের সংখ্যা অত বেশি নয়। ওদের সীমান্ত অনেক দিন ধরেই বন্ধ। তবে ওরা আন্তর্জাতিক ভ্রমণের ক্ষেত্রে এখনো অনেক অনেক কঠোর। ১৪ দিন বেশ কড়াকড়িভাবেই কোয়ারেন্টিন পালন করতে হয়। ছেলেরা এখন মাঠে নামার জন্য তৈরি।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন