জাতীয় লিগ এক মৌসুমে সর্বোচ্চ ৩৯টি সেঞ্চুরি দেখেছিল ২০০৪-০৫ মৌসুমে। এবার পঞ্চম রাউন্ডের তৃতীয় দিন শেষেই সংখ্যাটা ৪৫। যার শেষ ৫টি কাল করলেন ঢাকা মহানগরের শামসুর রহমান (১০৩), খুলনার তুষার ইমরান (১৫৮) ও মোহাম্মদ মিঠুন (১২৬), চট্টগ্রামের নাফিস ইকবাল (১০৮) এবং রংপুরের নাঈম ইসলাম (১৩৮*)।
বিকেএসপির ৩ নম্বর মাঠে লিটন দাসের পর নাঈমের সেঞ্চুরিতে ৬ উইকেটে ৫২৭ রানে ইনিংস ঘোষণা করে রংপুর। প্রথম শ্রেণিতে নাঈমের এটা ষোড়শ সেঞ্চুরি। দ্বিতীয় ইনিংসে ১ উইকেটে ৮৫ রানে দিন শেষ করা রাজশাহীকে ইনিংস হার এড়াতে করতে হবে আরও ১৭৯ রান।
ফতুল্লায় অষ্টাদশ সেঞ্চুরি পেয়ে মোহাম্মদ আশরাফুলকে ছুঁয়েছেন তুষার। প্রথম শ্রেণির সেঞ্চুরিতে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সবার ওপরে এই দুজনই। তুষার-মিঠুনের সেঞ্চুরিতে ঢাকা বিভাগের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ৬ উইকেটে ৪৩৭ রান খুলনার। মিরপুরে শামসুরের দল ঢাকা মহানগর ৮ উইকেটে ২৬৪ রানে দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করে। সিলেটের নাবিল সামাদ ৫৯ রানে নিয়েছেন ৬ উইকেট। ৩৫৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমে দিন শেষ সিলেট করেছে ১ উইকেটে ৩৩।
বিকেএসপির ২ নম্বর মাঠে সেঞ্চুরি করে তিন বছরের খরা ঘুচিয়েছেন নাফিস ইকবাল। তবে তাঁর দল চট্টগ্রামকে লড়তে হচ্ছে ইনিংস পরাজয় এড়াতে। বরিশালের ৫৯৭ রানের জবাবে দুই ইনিংসে ৩৩৯ ও ২ উইকেটে ৫৩ রান করেছে দলটি। প্রথম ইনিংসে বরিশালের সোহাগ গাজী ৫ উইকেট নিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন