বোলিংয়ের সঙ্গে ব্যাটিংটাও ভালোই পারেন মিচেল স্টার্ক
বোলিংয়ের সঙ্গে ব্যাটিংটাও ভালোই পারেন মিচেল স্টার্কফাইল ছবি

ব্রিসবেনে ১৬ বছর আগের সেই টেস্ট ভোলার কথা নয় গ্লেন ম্যাকগ্রার। প্রথম ইনিংসে ৩৫৩ রান তোলে নিউজিল্যান্ড। খেলার তৃতীয় দিনে গ্লেন ম্যাকগ্রা যখন নামেন প্রথম ইনিংসে সাড়ে চার শ পার করে ফেলেছে অস্ট্রেলিয়া।

ম্যাকগ্রা উইকেটে জমে গেলেও দল পাঁচ শ তুলে ফেলার পর ইনিংস ঘোষণা করতেই পারতেন তখনকার সর্বজয়ী অস্ট্রেলিয়া দলের অধিনায়ক রিকি পন্টিং।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু তা না করে ড্রেসিং রুমে সবাই উপভোগ করেছেন ম্যাকগ্রার ফিফটি তুলে নেওয়া আশ্চর্য ব্যাটিং। ম্যাকগ্রার হৃদয়ের দাবি অধিনায়ক হয়তো টের পেয়েছিলেন। টেস্ট ইতিহাসে অন্যতম সেরা বোলারের ফিফটিও আছে—ম্যাকগ্রার জন্য তা কতটা আনন্দের ব্যাপার হতে পারে, পন্টিং হয়তো বুঝেছিলেন।

নিউ সাউথ ওয়েলস অধিনায়ক পিট নেভিল হয়তো তেমন ধাতে গড়া মানুষ নন। তিনি পন্টিং হতে পারেননি, তাই তো আজ শেফিল্ড শিল্ডে নিজের দলের বোলার মিচেল স্টার্কের রাগে ব্যাট ছুড়ে মারাও দেখতে হলো।

দীর্ঘ সংস্করণের ম্যাচে বোলারদের জন্য এমন মুহূর্ত সত্যিই কষ্টের। স্টার্কের কথাই ধরুন। চার দিনের ম্যাচে তাসমানিয়ার মুখোমুখি হয়েছে নিউ সাউথ ওয়েলস। প্রথম ইনিংসে ৬৪ রানে অলআউট হওয়া নিউ সাউথ ওয়েলস দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমেছিল ১৭৫ রানে পিছিয়ে থেকে।

স্টার্ক যখন ৮ নম্বরে ব্যাটিংয়ে নামেন ১৫৮ রানের লিড পেয়ে গেছে তাঁর দল। অস্ট্রেলিয়া দলেও ‘লেজ’-এ ব্যাট করা স্টার্ক ব্যাটিংয়ে অন্তত কোর্টনি ওয়ালশের মতো নয়—টেস্টে ১০টি ও প্রথম শ্রেণিতে ১১টি ফিফটি আছে বাঁহাতি পেসারের।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু কোনো সেঞ্চুরি নেই। আজ সেই সুযোগ ছিল। কিন্তু নেভিল তাঁর বোলারের হৃদয়ের দাবি কানে তোলেননি। শন অ্যাবট সেঞ্চুরি তুলে নিতেই ইনিংস ঘোষণা (৬ উইকেটে ৫২২) করেন বেরসিক নিউ সাউথ ওয়েলস অধিনায়ক। স্টার্ক তখন অন্য প্রান্তে ৮৬ রানে অপরাজিত।

বিশ্বজুড়ে ব্যাটসম্যানদের মনে ত্রাসের সঞ্চার করা এ পেসার মনের ক্ষোভটা আর লুকিয়ে রাখতে পারেননি। অ্যাবট অভিনন্দন জানাতে গেলে স্টার্কের মুখে ক্ষোভের ছবিটা পরিষ্কার বোঝা গেছে। মাঠ ছেড়ে ড্রেসিং রুমে ফেরার পথে ব্যাটটা রাগে ছুড়ে মারেন স্টার্ক। তাঁর এ ক্ষোভ যে অধিনায়কের ওপর সেটি না বললেও চলে।

default-image

ম্যাচে বাকি আছে আরও এক দিন। নিউ সাউথ ওয়েলস দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করেছে ৩৪৮ রানের লক্ষ্য দিয়ে। তাসমানিয়া চতুর্থ ইনিংসে ১৩ ওভার ব্যাটও করেছে। প্রশ্ন উঠতেই পারে, আজ যেহেতু সময় ছিল স্টার্ককে সেঞ্চুরি তুলে নেওয়ার সুযোগটা দিতে পারতেন নেভিল।

আজ পুরো সময় ব্যাট করে লিড আরও বাড়িয়ে কাল সকালের প্রথম বল থেকে তাসমানিয়াকে অলআউট করার চ্যালেঞ্জ নিতে পারতেন নিউ সাউথ ওয়েলস অধিনায়ক। নেভিল সম্ভবত বোলারদের আরও সময় দিতে চেয়েছেন, ২৬ রান তুলতে ২ উইকেট হারিয়ে নেভিলের সিদ্ধান্তের পক্ষে অদৃশ্য যুক্তিও দাঁড় করিয়েছে তাসমানিয়া।

সে যাই হোক, তাতে স্টার্কের মনের আগুন নেভার কথা নয়। দিনের খেলা শেষে অ্যাবট বেশ মজা করেই বলেন, ‘রাতে গিয়ে তাঁকে একটু সান্ত্বনা দিয়ে ডিনার করাতে হবে।’

নেভিল ইনিংস ঘোষণা করার পর স্টার্কের অভিব্যক্তি দেখে ধারাভাষ্যকার বলছিলেন, ‘মিচেল স্টার্ক অসন্তুষ্ট। দেখুন, ব্যাট ছুড়ে মারছে, গ্লাভস ফেলে দিচ্ছে। ইনিংস ঘোষণার সময় তাঁর মাথা নাড়ানো দেখেই বোঝা যাচ্ছিল সিদ্ধান্তটিকে সে কীভাবে নিয়েছে।’

বিজ্ঞাপন

কীভাবে—সেটি স্টার্কের টেস্ট ও প্রথম শ্রেণিতে সর্বোচ্চ রানের ইনিংস দেখলেই টের পাওয়া যায়। দুই সংস্করণেই সর্বোচ্চ ৯৯ রানে আউট হয়েছেন স্টার্ক। দীর্ঘ সংস্করণের ম্যাচে এ পেসারের কোনো সেঞ্চুরি নেই। সেই সুযোগটা কেড়ে নেওয়ায় স্টার্ক তাঁর অধিনায়কের ওপর রাগ করতেই পারেন।

মন্তব্য পড়ুন 0