default-image

ওয়াকার ইউনিস আজও বলতে পারবেন না আমির সোহেলে সেদিন অমন আচরণ করেছিলেন! ১৯৯৬ বিশ্বকাপে বেঙ্গালুরুর কোয়ার্টার ফাইনালে আমির সোহেল ভেঙ্কটেশ প্রসাদের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েছিলেন। এক বলে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে প্রসাদের উদ্দেশে কিছু বলার পরের বলেই বোল্ড হয়ে যান। ভারত–পাকিস্তান ক্রিকেট লড়াইয়ের ইতিহাসে প্রসাদের সঙ্গে সোহেলের সেই কথার লড়াই, কিংবা বাউন্ডারি হাঁকিয়ে পরের বলেই বোল্ড হয়ে যাওয়ার মুহূর্তটি অন্যতম সেরা।

কিন্তু সোহেলের সেই কাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল পাকিস্তান। সোহেল সেদিন ওয়াসিম আকরামের অবর্তমানে পাকিস্তানকে নেতৃত্বে দিচ্ছিলেন। শুধু তা–ই নয়, সাঈদ আনোয়ারকে সঙ্গে নিয়ে ২৮৮ রান তাড়া করতে নামা পাকিস্তান দলকেও এনে দিয়েছিলেন দারুণ শুরু।

সম্প্রতি এক পডকাস্টে ওয়াকার সোহেলের সেই আচরণ সম্পর্ক বলেছেন। সেদিন দলের অধিনায়কের এই আচরণে খুবই অবাক হয়েছিলেন তাঁরা, 'সত্যি কথা বলতে কী, আমির সোহেলের সেই আচরণ আমাদের সবাইকে খুব অবাক করেছিল। সে দারুণ ব্যাটিং করছিল সেদিন। মাঠের প্রতিটি কোণায় বল পাঠাচ্ছিল মেরে। আমি মনে করি চাপের কারণেই সোহেল সেদিন ওই কাণ্ডটা করেছিল। ভেঙ্কটেশ প্রসাদের সঙ্গে অযথাই একটা বচসায় জড়িয়ে নিজের উইকেট দিয়ে এসেছিল।'

সে ম্যাচটির কথা হয়তো কখনোই ভুলতে পারবেন না ওয়াকার। প্রথমে ব্যাটিং করা ভারতকে সেদিন নাগালের মধ্যেই রেখেছিল পাকিস্তান। কিন্তু ওয়াকারের শেষ দুই ওভার থেকে ৪০ রানের মতো তুলে নেন ভারতীয় ব্যাটসম্যান অজয় জাদেজা। ভারত স্কোরবোর্ডে তোলে ২৮৭ রান। আজ থেকে ২৪ বছর আগে টি–টোয়েন্টি–পূর্ব যুগে পরে ব্যাটিং করে ২৮৮ রান তোলা যথেষ্ট কঠিন কাজই ছিল। সে কঠিন কাজেই পাকিস্তানকে সুন্দর একটা সূচনা এনে দিয়েছিলেন দুই ওপেনার সাঈদ আনোয়ার আর আমির সোহেল। ১০ ওভারে উঠেছিল ৮৪ রান। কিন্তু সাঈদ আনোয়ার ফেরার পর সোহেলের মাথা গরম করার খেসারত দিতে হয়েছিল পাকিস্তানকে ৪৩ রানে হেরে।

সে ম্যাচে ইজাজ আহমেদ আর ইনজামাম–উল–হকের উইকেট হারানোর পর ম্যাচ থেকে ছিটকে পারে পাকিস্তান, 'আমি কৃতিত্ব দেব অনিল কুম্বলে আর ভেঙ্কটেশ প্রসাদকে। খুব সম্ভবত এক ওভারের মধ্যে ইজাজ আর ইনজামাম ফিরে যাওয়ার পর পাকিস্তান ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়ে।'

সে ম্যাচে পাকিস্তানের ভুলগুলো এখন বুঝতে পারেন ওয়াকার, 'আমাদের দলে জাভেদ মিয়াঁদাদের মতো ব্যাটসম্যান ছিলেন। তাঁকে আমরা ছয়ে পাঠিয়েছি। তাঁকে সে ম্যাচে চার নম্বরে ব্যাটিং করতে পাঠানো উচিত ছিল। তবে এটা ঠিক ম্যাচটি দুর্দান্ত খেলেছিল ভারত। জয়ের পুরো কৃতিত্ব তাদেরই। তারা সে ম্যাচে যোগ্যতর দল হিসেবেই জিতেছিল।'

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন