default-image

ভারতীয় ক্রিকেটে আগ্রাসণ এনেছেন বলে সুখ্যাতি সৌরভ গাঙ্গুলীর। দেশটির ক্রিকেট মানসিকতা বদলে দেওয়ার মূল কারিগর তিনি। তবে এই আগ্রাসণের কারণে শাস্তিও পেতে বসেছিলেন সৌরভ। আর তাঁকে সে বিপদ থেকে বাঁচাতে এগিয়ে এসেছিল প্রতিপক্ষ দল শ্রীলঙ্কা।

২০০২ চ্যাম্পিয়নস ট্রফির ফাইনালটাকে ভিন্ন কারণে মনে রাখবেন সবাই। বৃষ্টির কারণে টানা দুইদিন চেষ্টা করেও বিজয়ী নির্ধারণ করা সম্ভব হয়নি। রিজার্ভ ডেরও প্রায় পুরোটা শ্রীলঙ্কাই ব্যাট করেছে, ভারত ব্যাটিং করে মাত্র ২ ওভার। বৃষ্টিতে ভেসে যাওয়া সে ম্যাচেই মেজাজ হারিয়ে কিঠন শাস্তির মুখে পড়েছিলেন ভারতীয় অধিনায়ক। শেষ পর্যন্ত শ্রীলঙ্কার সাহায্য নিয়ে নিষেধাজ্ঞার মতো শাস্তি এড়ান সৌরভ।

এতদিন পর সে কথা জানিয়েছেন কুমার সাঙ্গাকারা। স্টার স্পোর্টসের অনুষ্ঠান 'ক্রিকেট কানেক্টেডেসে' লঙ্কার সাবেক অধিনায়ক বলেন, 'আমার একটা ঘটনা খুব ভালো মনে আছে। একটি ওয়ানডে ম্যাচে রাসেল আরনল্ডের সঙ্গে তুমুল ঝগড়া হয়েছিল তাঁর। আম্পায়ারও তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছিল।'

ম্যাচে রাসেল আরনল্ড বারবার দৌড়ে উইকেটের বিপজ্জনক জায়গায় চলে যাচ্ছিলেন। এতে বিরক্ত হয়ে কথা শোনাচ্ছিলেন সৌরভ। এক পর্যায়ে দুজনের মধ্যে ঝগড়া বেধে যায়। আম্পায়াররা পরিস্থিতি শান্ত করলেও ম্যাচ রেফারির কাছে প্রতিবেদনে তারা ঘটনাটি উল্লেখ করেন। আগে থেকেই আচরণবিধি ভাঙ্গার অভিযোগে অভিযুক্ত সৌরভ তাই প্রতিপক্ষের সাহায্য চান। সাঙ্গাকারা বলছিলেন, 'দাদা আমাদের ড্রেসিং রুমে এসে কথা বলেন। আমাদের জানান এটা যদি বেশিদূর গড়ায় তাহলে তাঁকে নিষেধাজ্ঞার শাস্তি পেতে হবে। আমরা তাঁকে আশ্বস্ত করি, চিন্তা করার দরকার নেই। আমরা এ নিয়ে শোরগোল করব না এবং তাঁকে ঝামেলা পোহাতে হবে না।'

শ্রীলঙ্কা দল কথা রেখেছিল বলেই সে যাত্রা নিষেধাজ্ঞা থেকে বেঁচে গিয়েছিলেন সৌরভ।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন