default-image

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কাল অ্যাপোলো হাসপাতালে দেখতে গিয়েছিলেন সৌরভ গাঙ্গুলীকে। দেখে আসার পর সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেছেন, ‘সৌরভকে দেখে এলাম। ও ভালো আছে। সুস্থ আছে। ওর দ্রুত আরোগ্য কামনা করছি।’

চলতি মাসের শুরুতে মৃদু হার্ট অ্যাটাকের শিকার হওয়া ভারতের সাবেক অধিনায়ক ও বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ কিছুদিন আগে আবারও বুকে ব্যথা অনুভব করলে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এর আগে জানা গিয়েছিল, সৌরভের দীর্ঘদিনের চিকিৎসক দেবী শেঠির উপস্থিতিতে তাঁর ধমনিতে স্টেন্ট পরানো হবে। চিকিৎসকেরা কাল এনজিওপ্লাস্টির পর দুটি স্টেন্ট পরিয়েছেন সৌরভের ধমনিতে।

রক্তনালির মধ্যে চর্বি জমে সরু হয়ে যাওয়া পথ প্রশস্ত করতে এনজিওপ্লাস্টি করা হয়। এই প্রশস্ত পথ ধরে রাখতে স্টেন্ট বা রিং পরানো হয়।

বিজ্ঞাপন

এনজিওপ্লাস্টির পর অ্যাপোলো হাসপাতালের বিবৃতিতে বলা হয়, ‘গোটা প্রক্রিয়া স্বাভাবিকভাবেই সম্পন্ন হয়েছে। সৌরভ গাঙ্গুলী নিবিড় পর্যবেক্ষণে স্থিতিশীল অবস্থায় আছেন।’

এ সময় সিনিয়র হৃদরোগ চিকিৎসকদের সঙ্গে নামকরা হৃদরোগ সার্জন দেবী শেঠিও উপস্থিত ছিলেন। সংবাদমাধ্যমকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, ‘সৌরভ জেগে আছে। কথা বলছে। অস্ত্রোপচার সফল হয়েছে। আমি তার স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছি।’ সফল অস্ত্রোপচারের জন্য চিকিৎসকদের শুভকামনাও জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সৌরভের চিকিৎসা প্যানেলের এক সিনিয়র চিকিৎসক ভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘জনাব গাঙ্গুলীর রাতে ভালো ঘুম হয়েছে। সকালে হালকা নাশতাও করেছেন। চিকিৎসার পরবর্তী ধাপ নিশ্চিত করতে আজ তাঁর কিছু পরীক্ষা করা হবে।’

কাল বেলা ৩টার দিকে সৌরভের এনজিওপ্লাস্টি শুরু করেন চিকিৎসকেরা। পাঁচটা নাগাদ এনজিওপ্লাস্টি শেষ করেন তাঁরা। এর আগে জানা গিয়েছিল, একটি স্টেন্ট পরানো হবে তাঁর ধমনিতে। কিন্তু কাল দুটি স্টেন্ট পরানো হয়।

দেবী শেঠি সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ‘গোটা প্রক্রিয়া সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়েছে। সৌরভের অবস্থা স্থিতিশীল।’

আগামী এক বছর কড়া ডোজের ওষুধের সঙ্গে জীবনযাপনও নিয়ন্ত্রণ করতে হবে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) সভাপতিকে।

পরশু বুকে ব্যথা অনুভব করায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয় ৪৮ বছর বয়সী সৌরভকে। তখন ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছিল, আগের রাতে কিছুটা অস্বস্তি বোধ করছিলেন সৌরভ। বিকেলেও বুকে ব্যথা অনুভব করছিলেন।

দুপুরে ব্যথা বাড়লে কলকাতার অ্যাপোলো হাসপাতালে নেওয়া হয়। কলকাতা পুলিশ জানিয়েছিল, গ্রিন করিডর করে হাসপাতালে নেওয়া হয় সৌরভকে। জরুরি অবস্থা কিংবা বিশেষ গুরুত্বপুর্ণ কাউকে দ্রুত হাসপাতালে নিতে গ্রিন করিডরের ব্যবস্থা করা হয়।

এর আগে ২ জানুয়ারি বুকে ব্যথার কারণে উডল্যান্ড হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন সৌরভ। চিকিৎসকেরা জানিয়েছিলেন, তাঁর মৃদু হার্ট অ্যাটাক হয়েছে। তখন তাঁর তিনটি করোনারি ধমনিতে ব্লক ধরা পড়েছিল।

চিকিৎসকেরা তখন একটি স্টেন্ট পরিয়েছিলেন তাঁর ধমনিতে। ভারতের হয়ে ১১৩ টেস্ট, ৩১১ ওয়ানডে খেলেছেন সৌরভ গাঙ্গুলী। দেশের ইতিহাসের অন্যতম সেরা অধিনায়কও মানা হয় এই বঙ্গসন্তানকে।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন