দিনকাল ভালো যাচ্ছে না স্টোকসের।
দিনকাল ভালো যাচ্ছে না স্টোকসের।ছবি: এএফপি

পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ জেতার লড়াইয়ে গতকাল মাঠে নেমেছিল ভারত ও ইংল্যান্ড। ব্যাট হাতে অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও রোহিত শর্মা, পরে বল হাতে ভুবনেশ্বর কুমার ও শার্দুল ঠাকুরের নৈপুণ্যে আহমেদাবাদে কাল পঞ্চম টি-টোয়েন্টি জিতে সিরিজটা নিজেদের পকেটে পুরেছে ভারত।

সিরিজ হারার সঙ্গে সঙ্গে শুরু হয়েছে ইংল্যান্ডের আত্মসমালোচনা, নিজেদের দুর্বলতা খুঁজে বের করা। আর এটা করতে গিয়েই সাবেক ইংলিশ ব্যাটসম্যান কেভিন পিটারসেনের চোখে পড়েছে একটা বিষয়। বেন স্টোকসের মতো একজন ব্যাটসম্যান কেন ৬ নম্বরে ব্যাট করবেন, সেটা বুঝে উঠতে পারছেন না তিনি।

এই সিরিজে স্টোকস ব্যাট করার সুযোগ পেয়েছেনই তিনবার। এর মধ্যে দুবার নেমেছেন ৬ নম্বরে, একবার ৫ নম্বরে। বাকি যে দুই ম্যাচে ব্যাট করার সুযোগ পাননি, সেটাও তাঁকে ৬ নম্বর ব্যাটসম্যান হিসেবে রাখার কারণেই। জেসন রয়, জস বাটলার, ডেভিড ম্যালান, জনি বেয়ারস্টো, অধিনায়ক এউইন মরগান—সবাই নিয়মিত ব্যাট করেছেন স্টোকসের ওপরে। ইংল্যান্ডের এই সিদ্ধান্তই মাথায় ঢুকছে না পিটারসেনের। স্টোকসের মতো একজন খেলোয়াড়কে ব্যাটিং অর্ডারে আগে নামিয়ে আরও বেশি কেন খেলার সুযোগ করে দেওয়া হচ্ছে না, সেই প্রশ্ন তুলেছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন
default-image

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে এমনিতেই বিভিন্ন সময়ে নিজের মতামত প্রকাশ করেন সাবেক এই ব্যাটসম্যান। ইংল্যান্ডের ম্যাচ হলে তো কথাই নেই। গতকালও এর ব্যতিক্রম ছিল না। সেখানেই স্টোকসের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন পিটারসেন। পাশাপাশি স্টোকসের কত নম্বরে ব্যাট করা উচিত, সেটাও ব্যাখ্যা করেছেন, ‘স্টোকসকে পার্টটাইম বোলার হিসেবে খেলিয়ে আর ৬ নম্বরে ব্যাট করতে দিয়ে ব্যাটসম্যান হিসেবে ওর সামর্থ্যকে নষ্ট করছি আমরা। টি-টোয়েন্টিতে বেয়ারস্টোকে ওপেনার হিসেবে খেলানো উচিত। আর সে যদি ওপেন করতে না-ও নামে, তাহলেও (বেয়ারস্টোকে চারে না নামিয়ে) স্টোকসকে ৪ নম্বরে ব্যাট করতে পাঠানো উচিত।’ প্রসঙ্গত, এই সিরিজে ৪ নম্বরে ব্যাট করেছেন বেয়ারস্টো।

বেয়ারস্টোকে চারে ও স্টোকসকে ছয়ে খেলিয়ে এই সিরিজে বলতে গেলে তেমন কোনো লাভ হয়নি ইংল্যান্ডের। ৪ নম্বরে নেমে ছোট ছোট কার্যকর কিছু ইনিংস খেললেও একটাও হাফ সেঞ্চুরি করতে পারেননি বেয়ারস্টো, সেঞ্চুরি তো পরের ব্যাপার। একই অবস্থা স্টোকসেরও, চতুর্থ ম্যাচটা বাদে অন্য ম্যাচগুলোয় তেমন কিছু করতে পারেননি।

default-image

এদিকে পিটারসেনের সঙ্গে গলা মিলিয়েছেন সাবেক ইংলিশ ব্যাটসম্যান রব কী-ও। স্কাই স্পোর্টসের এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেছেন, স্টোকস যেন আরও বেশি ব্যাট করতে পারেন, সে সুযোগ করে দেওয়া উচিত ইংল্যান্ডের, ‘স্টোকসকে আরও বেশি ব্যাট করার সুযোগ করে দিতে হবে। এমন তো নয় যে ও ব্যাট করতে পারে না। কয়েক বছর আগে আইপিএলের সেরা খেলোয়াড় হয়েছিল ও। টি-টোয়েন্টি তো ভালোই খেলতে পারে। তাই কোনো না কোনোভাবে ওকে আরও বেশি ব্যাট করার সুযোগ করে দিতে হবে। না হলে স্টোকসের জন্য ব্যাপারটা কঠিন হয়ে যাবে।’

টি-টোয়েন্টিতে আন্দ্রে রাসেল কিংবা কাইরন পোলার্ডের মতো ফিনিশার খুঁজছে ইংল্যান্ড। কিন্তু তাই বলে স্টোকসকে ফিনিশার বানানোর কোনো যুক্তি খুঁজে পাচ্ছেন না সাবেক এই ইংলিশ ব্যাটসম্যান, ‘কাইরন পোলার্ড কিংবা আন্দ্রে রাসেলের মতো ব্যাটসম্যানরা স্লগ ইয়র্কার বলগুলোও বেশ ভালোভাবে পেটাতে পারে। স্টোকস অসাধারণ একজন ক্রিকেটার হলেও সে-ও এই কাজ (পোলার্ড-রাসেলের মতো পেটাতে) পারে কি না, তা আমি জানি না। তবে ওকে যদি শুরুর দিকে ব্যাট করতে নামানো যায়, পাওয়ার প্লের সময়ে, তখন ও প্রতিপক্ষকে ধসিয়ে দিতে পারবে। কিন্তু ওকে যদি বলা হয় যে তুমি ৬ নম্বরে ব্যাট করতে নামো, শেষের পাঁচ ওভার ব্যাট করো...ওকে এতে খুব বেশি সুখী বলে মনে হচ্ছে না।’

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন