একটু ভিন্নভাবে সেঞ্চুরি উদ্‌যাপন স্টোকসের।
একটু ভিন্নভাবে সেঞ্চুরি উদ্‌যাপন স্টোকসের।ছবি: আইপিএল

সময় যত গড়াচ্ছে আইপিএলে রান তোলা তত কঠিন হয়ে উঠছে। রাজস্থান রয়্যালসের বিপক্ষে তাই ১৯৫ রান তোলার পর নিজেদের হয়তো নিরাপদই ভেবেছিল মুম্বাই ইন্ডিয়ানস। কিন্তু সে চিন্তাকে রীতিমতো উড়িয়ে দিয়েছেন বেন স্টোকস।

রাজস্থানের হয়ে ইনিংসের শুরুতে নেমেই নিজের ইচ্ছেটা বুঝিয়ে দিয়েছেন। পাওয়ার প্লেতেই দুজন সঙ্গী হারালেও নিজের ব্যাটিংয়ে কোনো প্রভাব ফেলতে দেননি। স্ট্রোকের ছটায় উজ্জ্বল এক ইনিংসে ১০ বল বাকি থাকতেই ম্যাচ বের করে নিয়েছেন। ৮ উইকেটের এই মহা গুরুত্বপূর্ণ জয়ে প্লে-অফের আশা একটু হলেও  উজ্জ্বল হলো রাজস্থানের। আগের মতোই শীর্ষস্থান ধরে রেখেছে মুম্বাই।

বিজ্ঞাপন
default-image

মুম্বাইয়ের রান যে আজ প্রায় দুই শ ছুঁতে পারবে সেটা প্রথমে টের পাওয়া যায়নি। শুরুতেই ফিরে গেছেন কুইন্টন ডি কক। সূর্যকুমার যাদব বেশ দ্রুত রান তুললেও ঈশান কিষান এগিয়েছেন বেশ ধীর গতিতে। তাই এক শ ছুঁতেই ১৩তম ওভারে চলে গিয়েছিল মুম্বাইয়ের ইনিংস। এর আগেই অবশ্য ফিরে গেছেন কিষান (৩৬ বলে ৩৭) ও যাদব (২৬ বলে ৪০)। কাইরন পোলার্ডও বেশ দ্রুত ফিরেছেন। কিন্তু দলটিকে রক্ষা করেন হার্দিক পান্ডিয়া।

সৌরভ তিওয়ারিকে (৩৪) এক প্রান্তে দাঁড় করিয়ে অন্যপ্রান্তে রীতিমতো ঝড় তুলেছেন পান্ডিয়া। ২১ বলের ছোট ইনিংসে মাত্র ১২টি বল সীমানা পার করাতে পারেননি। ৭ ছক্কা ও ২ চারে ৬০ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলেছেন। শেষ ৫ ওভারে ৭৯ রান তুলেছিল মুম্বাই ইন্ডিয়ানস।

default-image

পান্ডিয়ার এ ঝড় পরে ব্যর্থ হয়ে গেল স্টোকসের কারণে। চোটের কারণে আইপিএলের শুরু থেকে খেলতে পারেননি। আজ বুঝিয়ে দিয়েছেন, সেটা দলের কতটা ক্ষতি করেছে। রবিন উথাপ্পা ও স্টিভ স্মিথ দ্রুত ফিরে গেলেও দলের রান রেটে কোনো প্রভাব ফেলতে দেননি। ইনিংস যত এগিয়েছে তত রান তোলার গতি বাড়িয়েছেন।

ষষ্ঠ ওভারে পঞ্চাশ পেরোনো রাজস্থান ১০ ওভার পেরোতেই এক শ ছুঁয়েছে। পরের পঞ্চাশ এসেছে মাত্র ২৭ বলে। মাত্র ৫৯ বলে সেঞ্চুরি পেয়েছেন স্টোকস। অন্যপ্রান্তে সঞ্জু স্যামসনও ছিলেন দারুণ ছন্দে। মাত্র ২৭ বলে পঞ্চাশ পেরিয়েছেন ভারতীয় টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান। তাঁর ইনিংসে ছিল চারটি চারের সঙ্গে তিনটি ছক্কা। মাত্র ৮২ বলে ১৫২ রান তুলেছে রাজস্থানের তৃতীয় উইকেট জুটি।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0