ঝোড়ো ব্যাটিংয়ে সেঞ্চুরি তুলে নেন স্মিথ
ঝোড়ো ব্যাটিংয়ে সেঞ্চুরি তুলে নেন স্মিথছবি: এএফপি

শোকের আবহকে শক্তিতে পরিণত করল অস্ট্রেলিয়া? ভারতীয় বোলারদের ওপর দিয়ে স্টিভেন স্মিথ-অ্যারন ফিঞ্চদের ঝড় দেখে অন্তত তাই মনে হয়!

করোনা-কালে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ভারতের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডে গড়িয়েছে আজ। ম্যাচ শুরুর আগে প্রয়াত অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার ও ধারাভাষ্যকার ডিন জোন্সকে স্মরণ করেছে দুই দল।

শুধু তাই নয়, আছে আরও একটি শোক-স্মরণ উপলক্ষ। ফিলিপ হিউজ! ছয় বছর আগে মাথায় বলের আঘাত পেয়ে এই দিনেই পরপারে পাড়ি জমিয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ান ওপেনার। তাঁকেও স্মরণ করা হবে পরে।

বিজ্ঞাপন
default-image

হিউজ বাউন্সারে আঘাত পেয়েছিলেন, অস্ট্রেলিয়ার কোনো ব্যাটসম্যানই তা বোধ হয় ভোলেননি। আর তাই বুঝি মোহাম্মদ শামি, যশপ্রীত বুমরা, নবদ্বীপ সাইনিদের বাউন্সারকে বেধড়ক পিটিয়ে সীমানাছাড়া করেছেন স্মিথরা।

খেলা না দেখে থাকলে সিডনিতে ব্যাট করতে নামা অস্ট্রেলিয়ার স্কোরটা আগে বলে দেওয়া যাক— ৬ উইকেটে ৩৭৪! সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ (১১৪) ও স্টিভ স্মিথ (১০৫)। এর মধ্যে স্মিথের সেঞ্চুরিটি অনেক দিন মনে রাখার মতো।

৪ ছক্কা ও ১১ চারে ৬৬ বলে ১০৫ রানের ‘সাইক্লোন’ বইয়ে দেন স্মিথ। তুলে নিয়েছেন ওয়ানডেতে নিজের দ্রুততম সেঞ্চুরি (৬২ বল)। দুজনের এই ইনিংস আর গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের ১৯ বলে ৪৫ রানের ‘টর্নেডো’য় ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডেতে নিজেদের ইতিহাসে সর্বোচ্চ স্কোর পেয়ে যায় অস্ট্রেলিয়া।

ওয়ানডেতে এটি ভারতের বিপক্ষে কোনো দলের তৃতীয় সর্বোচ্চ স্কোর।

default-image

১৯৯২ বিশ্বকাপে ভারতের জার্সির আদলে বানানো নতুন জার্সিতে মাঠে নেমেছিলেন বিরাট কোহলিরা। মোট পাঁচ বোলার ব্যবহার করেন ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলি।

শুধু পেসার মোহাম্মদ শামি-ই ওভারপ্রতি গড়ে ৬-এর নিচে রান দিয়েছেন। উইকেট পেয়েছেন ৩টি। স্পিনার যুজবেন্দ্র চাহাল বেধড়ক মার খাওয়ার পরও কোহলি কেন তাঁকে ৪০তম ওভারের পর দুই ওভার বল করিয়েছেন সেটি বড় প্রশ্ন।

১০ ওভারে ৮৯ রানে ১ উইকেট নেন এ লেগ স্পিনার। ওয়ানডেতে কোনো ভারতীয় স্পিনারের এক ইনিংসে এটাই সর্বোচ্চ রান দেওয়ার নজির। এ পথে চাহাল ছাপিয়ে গেছেন নিজের অতীত রেকর্ড।

বিজ্ঞাপন

বোলারদের কোহলি যেভাবে ব্যবহার করেছেন তাতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে রব উঠেছে, অধিনায়ক রোহিত শর্মাকে কারও মনে পড়ছে কি না?

অস্ট্রেলিয়ার এই রানপাহাড়ে কৃতিত্ব আছে ডেভিড ওয়ার্নারেরও। ২৭.৫ ওভারে ফিঞ্চের সঙ্গে ১৫৬ রানের জুটি গড়ে আউট হন এ ওপেনার।

নিজে খেলেছেন ৭৬ বলে ৬৯ রানের ইনিংস। এমন দুর্দান্ত শুরু পাওয়ার পর অস্ট্রেলিয়াকে আর পেছনে ফিরে তাকাতে দেননি স্মিথ। ৩৬ বলে ফিফটি তুলে নেওয়ার পর খুনে মেজাজ হারাননি তিনি।

default-image

বেধড়ক পিটিয়েছেন ভারতের দুই স্পিনারকে। ৭৩ রানে ১ উইকেট নেন বুমরা। ওয়ানডেতে ২৮২ ডেলিভারির পর উইকেটের দেখা পেলেন এ পেসার।

ওয়ানডেতে কখনো এত রান তাড়া করে জিততে পারেনি ভারত। ৭ বছর আগে জয়পুরে অস্ট্রেলিয়ার ৩৫৯ রান তাড়া করে জিতেছিল তারা। আজ সিডনিকে কোহলিরা কি পারবেন নিজেদের ছাপিয়ে যেতে?

default-image
মন্তব্য করুন