নেটে ব্যাটিংয়ের সময় মাথায় আঘাত পান স্মিথ
নেটে ব্যাটিংয়ের সময় মাথায় আঘাত পান স্মিথ ছবি: টুইটার

ওল্ড ট্রাফোর্ডে কাল সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ইংল্যান্ডকে ১৯ রানে হারিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। এ ম্যাচে খেলেননি অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যান স্টিভ স্মিথ। নেটে ব্যাটিংয়ের সময় মাথায় আঘাত পেয়েছেন তিনি। কাল দ্বিতীয় ওয়ানডের আগে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হচ্ছে স্মিথকে। সন্দেহ আছে তাঁর খেলা নিয়েও।

টসে স্মিথের দলে না থাকার খবর জানিয়ে চমকে দিয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। ‘প্রাথমিক সতর্কতা’ হিসেবে তাঁকে বসিয়ে রাখার কথা জানান ফিঞ্চ। কোচিং দলের এক সদস্যকে নিয়ে বৃহস্পতিবার নেটে ব্যাট করছিলেন স্মিথ। সেই সদস্যের ‘থ্রো-ডাউন’ এ আঘাত পান তিনি। এরপর খুব দ্রুতই তাঁর ‘কনকাশন’ (মাথায় আঘাতজনিত জটিলতা) পরীক্ষা করানো হয়।

বিজ্ঞাপন
default-image

অস্ট্রেলিয়া দলের সূত্র থেকে এএফপি জানিয়েছে, দ্বিতীয় ওয়ানডের আগেও আরও একবার স্মিথের ‘কনকাশন’ পরীক্ষা করানো হবে। এরপর তাঁর শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে পরের ম্যাচে তিনি খেলতে পারবেন কি না। আপাতত বিশ্রামে আছেন তিনি।

স্মিথ না থাকলেও কাল জিততে অসুবিধা হয়নি অস্ট্রেলিয়ার। আগে ব্যাট করে ৯ উইকেটে ২৯৪ রান তুলেছিল ফিঞ্চের দল। স্মিথের জায়গায় তিনে ব্যাট করা মার্কাস স্টয়নিস ৪৩ রান করেন।

বিজ্ঞাপন

২৪ ওভারের মধ্যে ১২৩ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে ইনিংসের খেই হারানোর পথেই ছিল অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু সাতে নামা গ্লেন ম্যাক্সওয়েল তা হতে দেননি। ৫৯ বলে তাঁর ৭৭ রানের ইনিংস এগিয়ে দেয় অস্ট্রেলিয়াকে। সঙ্গে মিচেল মার্শের ৭৩ রানের ভূমিকাও কম নয়।

ওল্ড ট্রাফোর্ডে ওয়ানডেতে এত বেশি রান তাড়া করে জিততে পারেনি কোনো দল। জিততে হলে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডকে তাই রেকর্ডই গড়তে হতো। কিন্তু বেশ কাছে গিয়েও পারেনি স্বাগতিকেরা। ওপেনার জনি বেয়ারস্টোর ব্যাট থেকে এসেছে ৮৪। মিডলঅর্ডারে নামা স্যাম বিলিংস করেছেন ১১৮।

বিজ্ঞাপন
default-image

তবু শেষ দুই ওভারে গিয়ে ৪২ রানের সমীকরণে পিছিয়ে পড়েছিল ইংল্যান্ড। বিলিংস-আর্চার মিলে এ ব্যবধান কমানোর চেষ্টা করেও পারেননি। অস্ট্রেলিয়ার এই জয়ে দুর্দান্ত অবদান জস হ্যাজলউডের। ২৬ রানে নিয়েছেন ৩ উইকেট, সঙ্গে ৩ মেডেন! লাইন-লেংথ আর বাউন্সের অনুপম প্রদর্শনী দেখান তিনি।

লেগ স্পিনার অ্যাডাম জাম্পা ৪ উইকেট নিলেও ম্যাচসেরা হ্যাজলউড-ই।

মন্তব্য পড়ুন 0