হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন কপিল দেব। ভারতকে ১৯৮৩ বিশ্বকাপ জেতানো অধিনায়কের এনজিওপ্লাস্টি অস্ত্রোপচার করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম।

৬১ বছর বয়সী কিংবদন্তি এ অলরাউন্ডার বেশ কিছুদিন ধরে ডায়াবেটিস-জনিত শারীরিক সমস্যায় ভুগছিলেন। তবে এবার আইপিএলে বিশেষজ্ঞ মতামত দেওয়ার কাজ করছিলেন। আজ হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হওয়ার শিকার হওয়ার পর তাঁকে দিল্লির ফোর্টিস এসকর্ট হার্ট ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ‘টাইমস নাও’ জানিয়েছে, এখন কপিল দেবের শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল। বিপদমুক্ত হয়েছেন তিনি।

default-image

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ‘ইকোনোমিক টাইমস’-এর সংবাদকর্মী টিনা থ্যাকারে টুইটে লিখেছেন, ‘কিংবদন্তি ক্রিকেটার কপিল দেব হার্ট অ্যাটাকের শিকার হয়েছেন। দিল্লির এক হাসপাতালে এনজিওপ্লাস্টি করা হচ্ছে। তার দ্রুত আরোগ্য কামনা করছি।’ ভারতের ধারাভাষ্যকার ও ক্রিকেট বিশ্লেষক হর্শা ভোগলের টুইট, ‘বিশাল হৃদয়ের কপিল দেবের দ্রুত আরোগ্য কামনা করছি। এখনো অনেক কিছু করার বাকি।’ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কিছু ভেরিফাইড অ্যাকাউন্ট থেকে নিশ্চিত করা হয়েছে, কপিলের সঙ্গে সর্বশেষ সাক্ষাতে তাঁর স্বাস্থ্যহানির বিষয়টি সবার নজরে এসেছে। ওজন কমে যাচ্ছিল ‘হরিয়ানা হারিকেন’-এর।

বিজ্ঞাপন

ভারতের সাবেক কূটনীতিবিদ কে.সি সিং এ নিয়ে টুইট করেন, ‘কয়েক দিন আগে দিল্লি গলফ কোর্সে তার সঙ্গে দেখা হয়। অনেক ওজন কমেছে তার। হাতের পেশি অবশিষ্ট আছে খুব কমই। শুনলাম তিনি ডায়াবেটিস ও অন্যান্য স্বাস্থ্যগত সমস্যায় ভুগছেন। দ্রুত আরোগ্য কামনা করছি।’

কপিলের পরিবার থেকে তাঁর শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে এখনো কিছু বলা হয়নি। করোনাভাইরাসে ‘লকডাউন’ চলাকালীন চুল ছেঁটে নিজের বেশ পাল্টে আলোচিত হয়েছিলেন ভারতের অন্যতম সেরা এই তারকা।

এক সময় টেস্টে সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি ছিলেন কপিল। ১৩১ টেস্টে ৪৩৪ উইকেট নিয়েছেন তিনি। ওয়ানডেতে ২২৫ ম্যাচে নিয়েছেন ২৫৩ উইকেট। টেস্টে তাঁর রানসংখ্যা ৫২৪৮, সেঞ্চুরি ৮টি। ওয়ানডেতে ১ সেঞ্চুরিসহ ৩৭৮৩ রান করেছেন ভারতীয় কিংবদন্তি।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন