আইপিএলের ফরম্যাট বদলানোর কথা ভাবা হচ্ছে
আইপিএলের ফরম্যাট বদলানোর কথা ভাবা হচ্ছেফাইল ছবি: এএফপি

১০ দলের আইপিএল এর আগেও একবার দেখা গিয়েছিল। কিন্তু সূচির কঠিন ও বিভ্রান্তিকর নিয়মের সঙ্গে যোগ্য ফ্র্যাঞ্চাইজি খুঁজে না পাওয়া বিসিসিআইকে বাধ্য করেছে সেই পরীক্ষিত আট দলে ফিরে যেতে।

এরপর মাঝে ৯ দলের আইপিএলের দেখাও মিলেছিল। আগামী মৌসুমে আরেকবার ৯ দল নিয়ে আইপিএল খেলানোর কথাবার্তা চলছিল গত কয়েক দিনে। তবে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর দাবি, ৯ নয়, ১০ দল নিয়েই আইপিএল করার চিন্তা করছে বোর্ড।

২৪ ডিসেম্বর বুধবার বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) হবে বিসিসিআইয়ের। সে সভাতেই নাকি আইপিএলের ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে বোর্ড। তবে এবার নয়, ২০২২ সালেই ১০ দলের আইপিএল আয়োজন করবে ভারত।

বিজ্ঞাপন

করোনার কারণে ২০২০ আইপিএল দেরিতে আয়োজিত হয়েছে। ২০২১ আইপিএল আবার সময়মতোই হবে। এত কম সময়ের মধ্যে নতুন ধরন সৃষ্টি করা ও দল গঠন করা ঝামেলার মনে হচ্ছে বোর্ডের কাছে।

আহমেদাবাদের এজিএমে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে আলোচনা হবে। এর মধ্যে সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলীর বিরুদ্ধে অসন্তোষের প্রসঙ্গও নাকি থাকবে, তবে এর বাইরে আইপিএলই বেশি গুরুত্ব পাচ্ছে।

default-image

৯ দলের আইপিএল আয়োজনের চেয়ে ১০ ফ্র্যাঞ্চাইজিকে নিয়ে আয়োজন করলেই জাঁকজমকপূর্ণ হবে, এমনটাই ধারণা বোর্ডের।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বোর্ড কর্মকর্তা পিটিআইকে বলেছেন, ‘অনেকগুলো বিষয় নিয়েই ভেবে দেখতে এবং আলোচনা করা হবে। সংশ্লিষ্টদের ধারণা যেহেতু এপ্রিলে হবে আইপিএল, এত কম সময়ে বড় এক নিলামের আয়োজন করা, খেলোয়াড় ধরে রাখার নতুন নিয়ম দেওয়া এবং সব ফ্র্যাঞ্চাইজির একমত হওয়া খুব কঠিন।’

শুধু তাই নয়, নতুন কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজির আইপিএলে যুক্ত হওয়ার প্রক্রিয়ার অন্য ধাপগুলোও এই সময়ের মধ্যে সম্পন্ন করার সুযোগ নেই বলেই জানাচ্ছেন ওই কর্মকর্তা, ‘আপনাকে দরপত্র আহ্বান করতে হবে, তারপর বিড করার প্রক্রিয়া শুরু করতে হবে। যদি জানুয়ারি বা ফেব্রুয়ারিতে গিয়ে দুইটি দল বিড করে, তাহলে তো তাদের নিলামের জন্য সময় দিতে হবে। কারণ, মার্চ মাসেই নিলাম করা সম্ভব। এর ফলে নতুন দল পরিকল্পনা করার সময় খুব কম পাবে।’

১০ দলের আইপিএল মানে ৯৪টি ম্যাচ হওয়ার সম্ভাবনা। প্রায় আড়াই মাস ধরে আইপিএল হওয়া মানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ভালোই প্রভাব ফেলবে আইপিএল। বর্তমানে ৬০ ম্যাচের আইপিএলের জন্য সম্প্রচার প্রতিষ্ঠান স্টার ইন্ডিয়া বোর্ডকে পাঁচ বছরের চুক্তিতে ১৬ হাজার ৩৪৭ কোটি ৫০ লাখ রুপি দিচ্ছে।

কিন্তু ৯৪ ম্যাচের টুর্নামেন্টের জন্য আরও বেশি মূল্য দাবি করবে। ২৪ তারিখের সভার সবকিছুই আলোচনা করে দেখবে বিসিসিআই।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন