রান নিতে দৌড়াচ্ছেন ডেভন কনওয়ে।
রান নিতে দৌড়াচ্ছেন ডেভন কনওয়ে। ছবি: এএফপি

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ডেভন কনওয়ের অভিষেক গত বছর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। আজ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে মাঠে নামার আগে ঘরোয়া টি-টোয়েন্টিতে টানা চার ম্যাচে ফিফটি তুলে নিয়েছিলেন নিউজিল্যান্ডের এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।

কনওয়ের ব্যাট হেসেছে আজও—ক্রাইস্টচার্চে তাঁর ৫৯ বলে অপরাজিত ৯৯ রানের সুবাদে ৫ উইকেটে ১৮৪ রান তোলে নিউজিল্যান্ড। তাড়া করতে নেমে ৫৩ রানের হারে সিরিজে পিছিয়ে পড়ল অ্যারন ফিঞ্চের অস্ট্রেলিয়া।

আন্তর্জাতিক ও ঘরোয়া মিলিয়ে নিউজিল্যান্ডের ইতিহাসে প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে টি-টোয়েন্টি সংস্করণে টানা পাঁচ ম্যাচে ফিফটি তুলে নিলেন কনওয়ে। পেতে পারতেন সেঞ্চুরিও।

অস্ট্রেলিয়ার পেসার কেন রিচার্ডসনের করা শেষ ওভারের আগে ৮৭ রানে অপরাজিত ছিলেন তিনি। প্রথম বলে ১ রান নেওয়ার পর চতুর্থ ও পঞ্চম বলে ছক্কা ও চার মিলিয়ে ১১ রান নেন কনওয়ে। ইনিংসের শেষ বলের আগে ৯৮ রানে অপরাজিত তিনি।

বিজ্ঞাপন
default-image

শেষ বলে পয়েন্টে জোরে মারায় ফিল্ডার বলটা ফেরত পাঠানোর আগে অন্তত ২টি রান নিতে পারেননি তিনি। ১ রানে সন্তুষ্ট থেকে তাঁকে ফিরতে হয়েছে সেঞ্চুরি না পাওয়ার আক্ষেপ নিয়ে। ৩ ছক্কা ও ১০টি চার মারেন কনওয়ে।

আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টির ১৬ বছরের ইতিহাসে কনওয়ের আগে তিন ব্যাটসম্যান ৯৯ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছেড়েছেন—২০১২ সালে ইংল্যান্ডের লুক রাইটের পর গত বছর একই দুর্ভাগ্য মেনে নিতে হয়েছে পাকিস্তানের মোহাম্মদ হাফিজ ও ইংল্যান্ডের ডেভিড ম্যালানকে।

কনওয়েকে নিয়ে টি-টোয়েন্টিতে ৯৯ রানে অপরাজিত থাকা চারটি ইনিংসের মধ্যে তিনটি দেখা গেছে গত তিন মাসে। ১ ডিসেম্বর কেপটাউনে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ম্যালান, এর ১৯ দিন পর হ্যামিল্টনে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে হাফিজ।

আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ১৯ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়েছিল নিউজিল্যান্ড। কনওয়ে এখান থেকে টেনে তোলেন দলকে। ৩০ ও ২৬ রানের গুরুত্বপূর্ণ দুটি ইনিংস খেলেন যথাক্রমে গ্লেন ফিলিপস ও জিমি নিশাম।

১৯৯৪ সালে ওয়ার্ল্ড সিরিজে শেন ওয়ার্নের পর আজ অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি মিলিয়ে প্রথমবারের মতো বোলিংয়ে এক প্রান্ত থেকে ওপেন করেছেন লেগ স্পিনার অ্যাডাম জাম্পা। উইকেটশূন্য থাকতে হয় তাঁকে। ২টি করে উইকেট ঝাই রিচার্ডসন ও ড্যানিয়েল শামসের।

নিউজিল্যান্ড ওপেনার মার্টিন গাপটিল কোনো রান না করেই আউট হন। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে ৭০তম ইনিংসে এসে প্রথম ‘ডাক’ মারলেন গাপটিল। এ সংস্করণে সর্বোচ্চ টানা ৮৪ ইনিংস ডাক না মারার রেকর্ড ভারতের সাবেক অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির।

তাড়া করতে নেমে প্রথম দুই ওভারে ফিঞ্চ ও অভিষিক্ত জশ ফিলিপসকে হারিয়ে বিপদে পড়ে অস্ট্রেলিয়া। পাঁচ ওভারের মধ্যে ম্যাথু ওয়েড আর গ্লেন ম্যাক্সওয়েলও ফিরে গেলে জয়ের রাস্তা থেকে ছিটকে পড়ে সফরকারী দল। দলের রান সে সময় ছিল ৪ উইকেটে ১৯।

মিচেল মার্শ ও মার্কাস স্টয়নিস মিলে ২৮ বলে ৩৭ রানের জুটি গড়ে বিপর্যয় এড়ালেও দলীয় ৫৬ রানে আউট হন স্টয়নিস। এক পাশে লড়াই চালিয়ে যাওয়া মার্শ ৪৫ রান করে আউট হন। ১৩ বলে ২৩ রান করেন অ্যাশটন অ্যাগার। ২৮ রানে ৪ উইকেট নেন ইশ সোধি। ২টি করে উইকেট টিম সাউদি ও ট্রেন্ট বোল্টের।

পাঁচ ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচটি ২৫ ফেব্রুয়ারি ডানেডিনে।

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন