কাল লিড বড় করার দায়িত্বটা এ ফুজনের কাঁধে।
কাল লিড বড় করার দায়িত্বটা এ ফুজনের কাঁধে।ছবি: প্রথম আলো

ঘটনাবহুল এক দিন কাটল চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে। তৃতীয় দিনের খেলার শুরুতে জানা গেল, চোটের কারণে মাঠে নামেননি সাকিব আল হাসান। বিশেষজ্ঞ এ বাঁহাতি স্পিনারের অভাব অবশ্য সেভাবে টের পায়নি বাংলাদেশ।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ যে লড়তে লড়তে খেই হারিয়ে ফেলে! বাংলাদেশও দ্বিতীয় ইনিংসে নেমে সেই পথে পা রাখতে যাচ্ছিল। সাদমান ইসলাম ও মুমিনুল হকের দৃঢ়তায় প্রাথমিক বিপদ কাটানো গেলেও দিনটা স্বস্তি নিয়ে শেষ করতে পারেনি বাংলাদেশ।

প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের ৪৩০ রানের জবাবে আজ ২৫৯ রানে অলআউট হয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ১৭১ রানের লিড নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই রানের তুলনায় বেশি উইকেট হারিয়ে ফেলেছিল বাংলাদেশ। ১ রান তুলতেই নেই তামিম ইকবাল এবং নাজমুল হোসেন শান্ত!

বিজ্ঞাপন
default-image

এখান থেকে ‍দৃঢ়তা দেখিয়ে তৃতীয় দিনের খেলার বাকি সময় পার করার চেষ্টা করছিল সাদমান-মুমিনুল জুটি। শেষ পর্যন্ত তাদের জুটি না টেকায় ২০ ওভারে ৩ উইকেটে ৪৭ রান তুলে তৃতীয় দিনের খেলা শেষ করেছে বাংলাদেশ। দুই ইনিংস মিলিয়ে এ পর্যন্ত হাতে ২১৮ রানের লিড।

ব্যাটিংয়ে নেমে রাকিম কর্নওয়ালের ৩ বলের ব্যবধানে ২ উইকেট হারায় বাংলাদেশ। এ অফ স্পিনারকে আড়াআড়ি খেলতে গিয়ে এলবিডব্লু হন তামিম (০)। রিভিউ নিয়েও শেষ রক্ষা হয়নি। মাঝে এক বল পর নাজমুলের আউটটি ছিল আরও দৃষ্টিকটু। বলটা স্টাম্পের লাইনে পড়ে বের হয়ে যাচ্ছিল। নাজমুল কেন শেষ মুহূর্তে ব্যাটের কানা বের করে খেলার চেষ্টা করলেন, সেটা বড় প্রশ্ন। স্লিপে ক্যাচ দেন তিনি।

দুই ওভারের মধ্যে দুটি উইকেট পেয়ে যাওয়ায় পরিকল্পনা পাল্টান ক্যারিবীয় অধিনায়ক ক্রেগ ব্রাফেট। অষ্টম ওভারে বোলিংয়ে আনেন শ্যানন গ্যাব্রিয়েলকে। মরা উইকেট বেশ জোরে বল করা ও বাউন্স আদায় করায় সিদ্ধহস্ত এ পেসার। রাউন্ড দ্য উইকেট থেকে শর্ট স্কয়ার লেগ ও শর্ট ফাইন লেগে ফিল্ডার রেখে মুমিনুল ও সাদমানের গা বরাবর তুলেছেন গ্যাব্রিয়েল। কাল চতুর্থ দিনেও নিশ্চয়ই এই লাইন-লেংথ খুঁজবেন তিনি।

default-image

মাঝেমধ্যে ঝুঁকি দেখা গেলেও শেষ পর্যন্ত কোনো বিপদ ঘটতে দেননি বাংলাদেশ অধিনায়ক। কিন্তু সাদমান একপর্যায়ে গিয়ে গ্যাব্রিয়েলকে আর ঠেকাতে পারেননি। দিনের খেলা শেষ হওয়ার ছয় ওভার আগে গ্যাব্রিয়েলের গা বরাবর উঠে আসা বল খেলতে গিয়ে উইকেটের পেছনে জশুয়া দা সিলভাকে ক্যাচ দেন এ ওপেনার।

তার আগে পরিস্থিতি বুঝেই ব্যাট করছিলেন সাদমান। বিপদ ঘটতে না দিতে ধৈর্যের প্রতিমূর্তি হয়ে ২৯তম বলে রানের খাতা খোলেন। ৪২ বলে তাঁর ৫ রানের এ লড়াই পূর্ণতা পেলে সাদমান নিজেই হয়তো অনেক খুশি হতেন। তবে সাদমান-মুমিনুলের ৭৩ বলে ৩২ রানের জুটিতে প্রাথমিক বিপর্যয় কাটিয়েছিল বাংলাদেশ।

আজ তৃতীয় দিনে মোট ১১ উইকেট পড়েছে। ২ উইকেটে ৭৫ রান নিয়ে তৃতীয় দিনের খেলা শুরু করা ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৮৪ রান তুলতে আজ বাকি ৮ উইকেট হারায়। এর মধ্যে অবিশ্বাস্যভাবে শেষ ৫ উইকেট পড়েছে মাত্র ৬ রানে, ২৩ বলের ব্যবধানে! আর তামিম ও নাজমুল আউট হয়েছেন তিন বলের ব্যবধানে।

মুশফিক-মুমিনুল ৩৫ বলে ১৫ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়ে দিন পার করলেও একটি সুযোগ নষ্ট করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। দিনের খেলা শেষ হওয়ার ২ ওভার আগে কর্নওয়ালের ডেলিভারি মুশফিকের গ্লাভস ছুঁয়ে ধরা পড়ে শর্ট লেগে দাঁড়ানো ফিল্ডারের হাতে। মাঠের আম্পায়ার আউটের আবেদনে সাড়া দেননি। ওয়েস্ট ইন্ডিজও রিভিউ নেয়নি!

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন