বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক কনোরকে এমসিসির পরবর্তী প্রেসিডেন্ট হিসেবে অবশ্য ঘোষণা করা হয়েছিল ২০২০ সালের বার্ষিক সাধারণ সভায়। তবে করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে তখনকার প্রেসিডেন্ট কুমার সাঙ্গাকারার মেয়াদ এক বছর বাড়ানোর পর আজ এ অবৈতনিক পদের দায়িত্ব নিলেন কনোর।

বর্তমানে ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের নারী ক্রিকেটের ব্যবস্থাপনা পরিচালক পদে কাজ করছেন কনোর। এ ছাড়া ২০১১ সাল থেকে আইসিসির মেয়েদের ক্রিকেট কমিটির প্রধান হিসেবে কাজ করে আসছেন, সাসেক্স কাউন্টি ক্রিকেট ক্লাবেরও একজন পরিচালক তিনি। ২০১৯ সালে এমসিসির সাম্মানিক আজীবন সদস্য করা হয় কনোরকে। তাঁর সঙ্গে একই দিনে এমসিসির চেয়ারম্যান পদে দায়িত্ব নিয়েছেন ব্রুস কার্নেগি-ব্রাউন।

খেলোয়াড়ি জীবনে ১৯৯৫ সালে মাত্র ১৯ বছর বয়সে ইংল্যান্ডের হয়ে আন্তর্জাতিক অভিষেক হয় কনোরের। ২০০০ সালে এসে অধিনায়কত্ব শুরু করেন তিনি। ৪২ বছর পর ২০০৫ সালে প্রথমবারের মতো এই বাঁহাতি স্পিনারের অধীনই অ্যাশেজে অস্ট্রেলিয়াকে হারায় ইংল্যান্ড।

২০১৪ সালে কনোর দায়িত্বে থাকার সময় ইসিবিতে মেয়েদের ক্রিকেটে কেন্দ্রীয় চুক্তির পদ্ধতি চালু হয়। ২০২০ সালে ঘরোয়া ক্রিকেটেও মেয়েদের পেশাদার চুক্তি চালু করার ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখেন তিনি।

নিয়োগ পেয়ে পূর্বসূরি সাঙ্গাকারাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন কনোর। বলেছেন, ‘ড্রেসিংরুম ও বোর্ডরুমের অভিজ্ঞতা কাজে লাগানোর চেষ্টা করব, যাতে আগামী ১২ মাস ক্লাবের নেতৃত্বে থাকা ব্যক্তি ও কমিটিকে সহায়তা করতে পারি। এমসিসির এ দলের অংশ হওয়ার জন্য মুখিয়ে আছি আমি।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন