বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ঠিক পরের ওভারেই অ্যানাবেল সাদারল্যান্ডের বলে রিচা ঘোষ শূন্যতেই ক্যাচ দিয়েছেন। এরপর অধিনায়ক মিতালি রাজ ও পূজা ভাস্ত্রাকারের উইকেটও নিয়েছেন সাদারল্যান্ড। সে সময় ৪৮ রানের ব্যবধানে ৫ উইকেট হারিয়ে বেশ চাপেই পড়েছিল ভারত। ভাস্ত্রাকার ও রাজের আগে ৬৯ বলে ৬৪ রান করে ফিরেছেন ভাটিয়াও।

ভারতকে এরপর অনেকখানি এগিয়ে নেওয়ার কাজটা করেছেন সাতে নামা দীপ্তি শর্মা ও আটে নামা স্নেহ রানা। শর্মা ৩১ রান করেছেন ৩০ বলে, রানার ৩০ রান করতে দরকার হয়েছে মাত্র ২৭ বল। তবে ম্যাচ শেষ করে আসতে পারেননি দুজনের কেউই।

শেষ ৪ ওভারে ভারতের প্রয়োজন ছিল ২৪ রান। ৪৭তম ওভারে রানার টানা ৩ চারে ১৪ রান উঠলেও পরের ২ ওভারে এসেছে মাত্র ৬ রান, ফিরেছেন রানাও। শেষ ওভারে ভারতের দরকার ছিল ৪ রান। প্রথম ২ বলে একটা সিঙ্গেল এলেও তৃতীয় বলে মলিনিউকে চার মেরে ভারতের রেকর্ড জয় নিশ্চিত করেছেন ঝুলন গোস্বামী। এর আগে ওয়ানডেতে ভারত সর্বোচ্চ ২৪৭ রান তাড়া করে জিতেছিল ২০১৯ সালের অক্টোবরে, দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে।

আগের ম্যাচে গোস্বামীর করা নাটকীয় শেষ ওভারের শেষ বলে ম্যাচ জিতেছিল অস্ট্রেলিয়া। দিনটা অবশ্য নিজের করে নিয়েছেন ভারতের ৩৮ বছর বয়সী এই পেসারই। ব্যাটিংয়ে শেষ দিকে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখার আগে বোলিংয়ে ৩৭ রান দিয়ে ৩ উইকেট নিয়েছেন এ পেসার। আজ আগে ব্যাটিং করে অস্ট্রেলিয়া ২৬৪ রান তুলেছিল আগের ম্যাচের নায়ক বেথ মুনির ৫২, গার্ডনারের ৬৭ ও টালিয়া ম্যাকগ্রার ৪৭ রানের ইনিংসে ভর করে।

default-image

গোস্বামীর তোপে ৮৭ রানেই প্রথম ৪ উইকেট হারিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। ১৩ রান করা র‍্যাচেল হেইনসের পর অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক মেগ লেনিংকে শূন্যতেই ফিরিয়েছেন গোস্বামী। এরপর অ্যালিসা হিলি রানআউট হয়েছেন ৩৫ রান করে। এলিস পেরি ভাস্ত্রাকারের বলে ক্যাচ দেওয়ার আগে করেছেন ২৬ রান।

পঞ্চম উইকেটে মুনি ও গার্ডনার যোগ করেন ৯৮ রান। রানার বলে মুনি বোল্ড হয়ে ফিরলে ভাঙে সে জুটি। এরপর গার্ডনারের সঙ্গে ৩৯ ও নিকোলা ক্যারির সঙ্গে ৪৬ রানের জুটিতে অস্ট্রেলিয়াকে ২৫০ পার করান ম্যাকগ্রা।

অস্ট্রেলিয়াকে অবশ্য ভারত আটকাতে পারত আরও আগেই। অন্তত ৪টা সহজ ক্যাচ ফেলেছে ভারত। মিসফিল্ডের মাশুল হিসেবে গুনেছে আরও ১৫ রান। তবু প্রায় ৩ বছর ধরে টানা জয়ের রেকর্ডটা ধরে রাখা সম্ভব হয়নি অস্ট্রেলিয়ার।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন