৩ রানে ৭ উইকেটের বিশ্ব রেকর্ডের পর অভিশপ্ত ২৪

পরপর দুই দিন ২৪ রানে অলআউট হয়ে গেছে ফ্রান্সের মেয়েরাছবি: টুইটার

২০১৯ সালে মালদ্বীপের বিপক্ষে অঞ্জলি চাঁদ নিয়েছিলেন ৬ উইকেট। সে ইনিংসে কোনো রানও খরচ করেননি নেপালের অফ স্পিনার। এত দিন মেয়েদের আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে সেরা বোলিংয়ের রেকর্ড ছিল সেটাই। ২৬ আগস্ট চাঁদের সে রেকর্ড ভেঙে দিয়েছেন নেদারল্যান্ডসের ফ্রেডেরিক ওভারডাইক। এ ডানহাতি পেসার টি-টোয়েন্টিতে ৭ উইকেট নিয়েছেন মাত্র ৩ রান খরচ করে। ছেলে বা মেয়েদের টি-টোয়েন্টিতে এর আগে কোনো বোলারই ৭ উইকেট নেননি।

ওভারডাইকের অমন বোলিংয়ে ফ্রান্স সেদিন অলআউট হয়ে গিয়েছিল ৩৩ রানে। তবে তখন কে জানত, ফ্রান্সের মেয়েদের দুঃস্বপ্নের সবে শুরু! এর পর যে পরপর দুই দিন তাঁরা গুটিয়ে গেছেন ২৪ রানের মাঝেই! গতকাল আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে দুঃস্বপ্ন উপহার পেয়েছিল ফ্রান্স। আজ স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে দেখল দেজা ভ্যু! আগে ব্যাটিং করে ফ্রান্স আজও অলআউট হয়ে গেছে ২৪ রানেই।

ফ্রান্সের মেয়েরা বলতেই পারেন, ২৪ সংখ্যাটা এখন অভিশপ্ত তাঁদের জন্য। অবশ্য বোলিংয়ে একটু উন্নতিই হয়েছে ফরাসি মেয়েদের। আগের দিন আয়ারল্যান্ড জিতেছিল ১০ উইকেটেই, তবে আজ ফ্রান্সের ২৪ রান টপকে যেতে ৩ উইকেট হারিয়েছে স্কটল্যান্ড।

মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আঞ্চলিক বাছাইপর্বে ইউরোপ অঞ্চলে খেলছে ফ্রান্স। স্পেনে অনুষ্ঠিত হওয়া এ টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই অবশ্য ভুগছে তাঁরা। প্রথম ম্যাচে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ৩৩ রানের পর দ্বিতীয় ম্যাচে জার্মানির মেয়েদের কাছে ৪৫ রানে গুটিয়ে গিয়েছিল তারা। এরপর তো আয়ারল্যান্ড ও স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ২৪ রানের গেরোতেই আটকা দলটি।

টেস্টখেলুড়ে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে খেলাই ছিল ফ্রান্সের জন্য স্বপ্নপূরণের মতো
টুইটার

ফ্রান্সকে গুঁড়িয়ে দেওয়ার মূল কাজটা আজ করেছেন স্কটল্যান্ডের মেগান ম্যাককোল। ডানহাতি পেসার একাই নিয়েছেন ৫ উইকেট, সেটাও মাত্র ৩ রান খরচ করে। ক্যারিয়ারে এর আগে ১৫টি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি খেলেছেন ম্যাককোল, তবে সে ১৫ ম্যাচ মিলিয়ে তাঁর উইকেটসংখ্যা ছিল মাত্র ৫টি!

অবশ্য ম্যাককোলের এই বোলিং ফিগার মেয়েদের আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টির সেরা বোলিংয়ের তালিকায় ১১ নম্বরে। তবে ৩ বা এর কম রান দিয়ে ৫ বা এর বেশি উইকেট পেয়েছেন—এমন তালিকায় ম্যাককোলের অবস্থান সাতে।

নেদারল্যান্ডসের কাছে ৩৩ রানে অলআউট হয়েছিল ফ্রান্সের মেয়েরা
টুইটার

পরপর দুই দিন ২৪ রানে অলআউট হয়েও ফ্রান্স অবশ্য সর্বনিম্ন রানের রেকর্ডের তালিকায় ১৪ নম্বরে। এ জায়গায় সবার ওপরে মালদ্বীপের মেয়েরা এবং সেটিতে জড়িয়ে আছে বাংলাদেশের নাম। ২০১৯ সালে নিগার সুলতানা ও ফারজানা হকের সেঞ্চুরিতে ২৫৫ রান তুলেছিল বাংলাদেশ। জবাবে মালদ্বীপ গুটিয়ে গিয়েছিল ৬ রানেই।

পরের ম্যাচে নেপালের বিপক্ষে আগে ব্যাটিং করেও মালদ্বীপ আটকে গিয়েছিল ৮ রানে। তবে সেটাও মালদ্বীপের (এবং সব দলেরই) সর্বনিম্ন রানের রেকর্ডে তিন নম্বরে। সে বছরের জুনেই যে রুয়ান্ডার বিপক্ষে আগে ব্যাটিং করে মালদ্বীপ আটকে গিয়েছিল ৬ রানেই।