রোড সেফটি সিরিজের ম্যাচে চার বলে টানা চারটি ছক্কা মেরেছেন যুবরাজ।
রোড সেফটি সিরিজের ম্যাচে চার বলে টানা চারটি ছক্কা মেরেছেন যুবরাজ। ছবি: টুইটার

২০০৭ থেকে ২০২১—১৪ বছরের ব্যবধান। ২০০৭ সালের ২৪ বছর বয়সী যুবরাজ সিংয়ের বয়স এখন ৩৮। বয়স বাড়লেও এখনো এতটুকু বদলাননি ভারতের সাবেক অলরাউন্ডার। বিশেষ করে ব্যাট হাতে এখনো তিনি বোলারদের জন্য মূর্তিমান এক আতঙ্ক! বিভিন্ন দেশের সাবেক ক্রিকেটারদের নিয়ে রোড সেফটি ওয়ার্ল্ড সিরিজে কালই সেটা দেখিয়েছেন যুবরাজ। দক্ষিণ আফ্রিকা লেজেন্ডসের বিপক্ষে ভারত লেজেন্ডস দলের হয়ে ২২ বলে অপরাজিত ৫২ রান করার পথে চার বলে টানা চারটি ছক্কা মেরেছেন তিনি!

যুবরাজ কাল ছক্কা চারটি মেরেছেন দক্ষিণ আফ্রিকা লেজেন্ডসের মিডিয়াম পেসার জ্যান্ডার ডি ব্রুইনার বলে। তা তিনি যাঁর বলেই ছক্কা চারটি মারুন, এই চার ছক্কা বিশ্বজোড়া ক্রিকেট অনুসারীদের নিয়ে গেছে ১৪ বছর পেছনে, ২০০৭ টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপে। যুবরাজ সে সময় ২৪ বছরের তরুণ। চূড়ান্ত ফর্মে থাকা যুবরাজ সেবার ইংল্যান্ডের বিপক্ষে পেসার স্টুয়ার্ট ব্রডের এক ওভারে ৬ বলে মেরেছিলেন টানা ৬ ছক্কা! মনে করিয়ে দিয়েছিলেন রবি শাস্ত্রী, হার্শেল গিবসদের।

বিজ্ঞাপন

সেই ম্যাচে পাঁচ নম্বরে ব্যাট করতে নেমে যুবরাজ ১৬ বলে করেছিলেন ৫৮ রান। মেরেছিলেন ও ৬ ছক্কাসহ ইনিংসটিতে ছয় মেরেছেন মোট ৭টি। দুর্দান্ত ওই ইনিংসটির জন্য ম্যাচসেরার পুরস্কারও জিতেছিলেন যুবরাজ। কাল অবশ্য পাঁচে নয়, যুবরাজ ব্যাট করতে নেমেছিলেন চার নম্বরে। ২২ বলে অপরাজিত ৫২ রান করে এদিনও তিনি ম্যাচসেরা। ২০০৭ সালের সেই ম্যাচে যুবরাজের ইনিংসটির সঙ্গে গতকালের ইনিংসটির সেদিক থেকে অনেক মিল।

এই মিল দেখে যেন কিছু মুহূর্তের জন্য হলেও থমকে গিয়েছিল ক্রিকেট বিশ্ব। ধারাভাষ্যকারেরাও বারবার বলে যাচ্ছিলেন ২০০৭ টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেই ৬ ছক্কার কথা! ৩৮ বছরের যুবরাজ যেন মনে করিয়ে দিয়েছেন ২৪ বছরের যুবরাজকে। স্টুয়ার্ট ব্রড যদি রোড সেফটি ওয়ার্ল্ড সিরিজের এ ম্যাচটি দেখে থাকেন, তাহলে হয়তো সেই দুঃস্মৃতি মনে পড়ে যাবে তাঁরও।

default-image

তবে যুবরাজের ইনিংসটি শেষ হতে না হতেই ঝড় ওঠে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। ইনস্টাগ্রাম, টুইটার, ফেসবুক সরব হয়ে ওঠে এই চার ছক্কা আর ২০০৭ টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেই ছয় ছক্কা নিয়ে। সাধারণ ক্রিকেট অনুসারী থেকে ক্রিকেট বোদ্ধা, সাবেক ক্রিকেটার, ধারাভাষ্যকার—সবাই মেতে ওঠেন যুবরাজের চার ছক্কা নিয়ে। ভারতের সাবেক ক্রিকেটার আর বর্তমানের ধারাভাষ্যকার সঞ্জয় মাঞ্জরেকার টুইটারে যুবরাজের ভাষায় লিখেছেন, ‘আমার সেরা সময়ে আমি ৬টি ছক্কা মারতাম, এখন আমি ৪টি ছক্কা মারি।’ এটুকু লিখে মাঞ্জরেকার যোগ করেছেন, ‘যুবি তোমাকে ভালোবাসি। খুব উপভোগ করেছি এটা।’

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সরব ইংল্যান্ডের সাবেক ক্রিকেটার যুবরাজের প্রশংসা করার সুযোগ হাতছাড়া করেননি। নিজের টুইটে ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক লিখেছেন, ‘ক্রিকেটের সুন্দরতম জিনিসগুলোর একটি। দেখছি কত সহজে ছক্কা মারা যায়।’ এক যুবরাজ–ভক্তের টুইট ছিল এ রকম, ‘যুবরাজ ফিরে এসেছেন, এক ওভারে—৬, ৬, ৬, ৬!’

ওদিকে ব্রড গতকাল টুইটারে বসেছিলেন কি না কে জানে, বসলে তাঁর বিন্দুমাত্রও ভালো লাগবে না, নিশ্চিত!

বিজ্ঞাপন
ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন